১০ মাঘ  ১৪২৬  শুক্রবার ২৪ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সৌরভ মাজিবর্ধমান: স্বয়ম্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের কাছে নগদ সাড়ে পাঁচ লক্ষ ঋণ নিয়েছিল। বারবার চাইলেও তা পরিশোধ করছিল না। উলটে হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। সেই টাকা ফেরত চাইতে গেলে গোষ্ঠীর মহিলাদের বেধড়ক মারধর করার অভিযোগ উঠেছে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এমনকী মহিলাদের শ্লীলতাহানিও করা হয় বলে অভিযোগ। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর থানার দিঘিরপাড় এলাকার। এই ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

স্বয়ম্ভর গোষ্ঠীর তরফে এক মহিলা জামালপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। তার ভিত্তিতে পুলিশ মূল অভিযুক্ত নুর মহম্মদ মল্লিককে গ্রেপ্তার করেছে। রবিবার ধৃতকে বর্ধমান আদালতে পেশ করা হয়। বিচারক ধৃতকে বিচারবিভাগীয় হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন। সোমবার ফের তাকে আদালতে পেশ করতে বলা হয়েছে।

[ আরও পড়ুন : রায়দিঘিতে হলুদ কচ্ছপ, সোনার বরণ সরীসৃপ দেখতে জনতার ভিড়]

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, স্বয়ম্ভর গোষ্ঠীর এক সদস্য ছবি মাণ্ডি অভিযোগের ভিত্তিতে মারধর, শ্লীলতাহানি ও অর্থ আত্মসাতের ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে। ছবি মাণ্ডির অভিযোগ, পেশায় রাজমিস্ত্রি নূর মহম্মদ তাঁদের গোষ্ঠীর কাছ থেকে সাড়ে পাঁচ লক্ষ টাকা ঋণ নিয়েছিল। নির্দিষ্ট সময় পেরিয়ে গেলেও তা পরিশোধ করছিল না সে। শুক্রবার রাতে গোষ্ঠীর মহিলারা টাকা ফেরত চাইতে যান নূরের কাছ থেকে। সেসময় উত্তেজনা ছড়ায়।

[ আরও পড়ুন : ফের পদে পুরনো জেলা সভাপতি, কোচবিহারে প্রকাশ্যে বিজেপির অন্তর্দ্বন্দ্ব]

অভিযোগ, সেই সময় নুর ও তার পরিবারের বেশ কয়েকজন মিলে ওই মহিলাদের আক্রমণ করে। তাঁদের মারধর করে। এক মহিলার কাপড়ও ছিঁড়ে দেয় বলে অভিযোগ। ঘটনাস্থলে মহিলারা চিৎকার-চেঁচামেচি শুরু করলে নূর ও বাকি অভিযুক্তরা চম্পট দেয়। স্বয়ম্ভর গোষ্ঠীর মহিলারা শনিবার ঘটনার বিষয়ে জামালপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশের এক আধিকারিক জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা রুজু করা হয়েছে। একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের সন্ধান চলছে। দ্রুত তাদেরও গ্রেপ্তার করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং