BREAKING NEWS

৭ কার্তিক  ১৪২৮  সোমবার ২৫ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

পরিবারের চাপে বিয়েতে নারাজ প্রেমিকা, রাগে ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি পোস্ট প্রেমিকের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: October 18, 2019 7:10 pm|    Updated: October 18, 2019 7:11 pm

Youth arrested for spreading girlfriend's secret picture in social media

প্রতীকী ছবি

নবেন্দু ঘোষ, বসিরহাট: বিয়েতে রাজি নয় প্রেমিকার পরিবার। সেই আক্রোশে প্রেমিকার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে গ্রেপ্তার প্রেমিক। উত্তর ২৪ পরগনার হিঙ্গলগঞ্জ থানার অন্তর্গত কানাইকাঠির ঘটনায় বেশ তোলপাড় এলাকায়। ধৃতকে শনিবার বসিরহাট মহকুমা আদালতে তোলা হবে।

basirhat-arrest

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর, কানাইকাঠি গ্রামের বাসিন্দা দ্বাদশ শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে প্রতিবেশী মানস মণ্ডল নামে এক যুবকের বেশ কিছুদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মানস পেশায় শ্রমিক, ভিন রাজ্যে কাজ করে। মানসের কাছে তার প্রেমিকার বিভিন্ন ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি ছিল। কিন্তু সম্প্রতি ওই ছাত্রীর পরিবার মানসের সঙ্গে বাড়ির মেয়ের সম্পর্কের কথা জানতে পারে এবং তাতে প্রবল আপত্তি জানায়। জানা গিয়েছে, মানস মণ্ডল ওই পরিবারের দূরসম্পর্কের আত্মীয়। তাই এই সম্পর্ক মেনে নিতে চায়নি ছাত্রীর পরিবার। তাই ছাত্রীকে অন্যত্র বিয়ে দেওয়ার জন্য তোড়জোড় করতে থাকেন পরিবারের সদস্যরা। তার জন্য সম্বন্ধ দেখাও শুরু হয়। পরিবারের চাপে পড়ে ছাত্রীটিও অন্যত্র বিয়েতে রাজি হয়ে যায়।

[আরও পড়ুন: জ্যোমাটোয় অর্ডার দিয়ে প্রতারণার শিকার, ১০ হাজার টাকা খোয়ালেন তরুণী]

সমস্ত ঘটনাই জানতে পারে তার প্রেমিক মানস মণ্ডল। আর তা জানতে পেরেই মানস রেগে গিয়ে প্রেমিকার বিয়ে আটকাতে উঠেপড়ে লাগে বলে অভিযোগ ছাত্রীর আত্মীয়দের। তার হাতিয়ার হিসেবেই সে বেছে নেয় প্রেমিকার সঙ্গে বিভিন্ন ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি। ওই ছাত্রীর যেসব ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি মানসের কাছে ছিল, সেগুলি বৃহস্পতিবার একটি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে সে ছড়িয়ে দেয় বলে অভিযোগ। এরপর গোটা বিষয়টা ওই ছাত্রী ও তার পরিবারের নজরে আসে। ছাত্রীর বাবা বৃহস্পতিবার হিঙ্গলগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন মানসের বিরুদ্ধে। পুলিশ অভিযোগ পেয়ে তদন্ত শুরু করে। সাইবার অপরাধের অধীনে এই অভিযোগ দায়ের হয়। শুক্রবার সন্ধেবেলা কানাইকাঠি এলাকা থেকে পুলিশ অভিযুক্ত যুবক মানস মণ্ডলকে গ্রেপ্তার করে। পেশায় ভিন রাজ্যে শ্রমিকের কাজ করা মানস যদিও তার বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে। তার পালটা দাবি, তাকে পরিকল্পনা করে ফাঁসানো হয়েছে।

[আরও পড়ুন: কোথায় রাখা হয়েছে সন্ময়কে? খড়দহ থানায় তুমুল বিক্ষোভ বাম-কংগ্রেসের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement