BREAKING NEWS

০৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ২৬ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ভারতের করোনায় মৃতের সংখ্যা বাড়িয়ে বলতে WHO-কে প্রভাবিত করেছে ওষুধ সংস্থাগুলি!

Published by: Biswadip Dey |    Posted: May 11, 2022 11:49 am|    Updated: May 11, 2022 12:15 pm

Government suspects pharma companies might have influenced the WHO's report। Sangbad Pratidin

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এখনও পর্যন্ত দেশে করোনায় (Coronavirus) আক্রান্ত হয়ে কতজনের মৃত্যু হয়েছে? সরকারি হিসেব যা বলছে, তা নাকি আসল সংখ্যা নয়। আসল সংখ্যা অন্তত ৪৭ লক্ষ! বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা WHO এমনই দাবি করেছে তাদের রিপোর্টে। যে রিপোর্টকে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলে জানিয়েছে কেন্দ্র। সরকারি হিসেবে এখনও পর্যন্ত ২০২০ ও ২০২১ মিলিয়ে দেশে করোনায় মারা গিয়েছেন ৪ লক্ষ ৮০ হাজার মানুষ। কেন এই দুই হিসেবে এমন আকাশপাতাল ফারাক? এর পিছনে বিশ্বের বড় বড় ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থার প্রভাবের সম্ভাবনা রয়েছে বলেই মনে করছে কেন্দ্র। দাবি সরকারি সূত্রের।

কী বলছে সেই সূত্র? এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা যাচ্ছে, শীর্ষস্থানীয় সরকারি সূত্র জানিয়েছে যেসব বড় বড় ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা ভারতে কোভিড টিকা সরবরাহ করার অনুমতি পায়নি সম্ভবত তারাই রয়েছে এর পিছনে। তাদেরই প্রভাবে ‘হু’-এর রিপোর্টে ভারতে কোভিডে মৃতের সংখ্যায় এই বিপুল ‘বৃদ্ধি’ ঘটেছে বলেই দাবি ওই সূত্রের। যদিও এখনও সরকারি ভাবে এই বিষয়ে কোনও বক্তব্য রাখা হয়নি।

[আরও পড়ুন: ‘প্রধানমন্ত্রী অমিত শাহ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি’! এ কী বললেন হিমন্ত বিশ্বশর্মা, ভিডিও ঘিরে চাঞ্চল্য]

প্রসঙ্গত, প্রথম থেকেই ‘হু’-এর গণনাপদ্ধতিতে আপত্তি জানিয়েছে ভারত। কেন্দ্রে প্রশ্ন ছিল, কী করে একই মডেল ভারতের মতো ভৌগলিক আকার ও জনসংখ্যার দেশের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হওয়ার পাশাপাশি অল্প জনসংখ্যার দেশের ক্ষেত্রেও প্রয়োগ করা যাবে? সকলের জন্য এক গণনাপদ্ধতিতে হিসেবে ভ্রান্তি আসতে পারে বলেই জানিয়েছিল ভারত। দীর্ঘদিন ধরেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সঙ্গে ভারতের তথ্য বিনিময় চলছে। অবশেষে WHO যে রিপোর্ট পেশ করেছে, তাতে দাবি করা হয়েছে দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা সরকারি হিসেবের প্রায় ১০ গুণ বেশি! যা এককথায় নাকচ করে দিয়েছে কেন্দ্র।

এদিকে চিনে যেভাবে করোনার সংক্রমণের হার রুখতে সাংহাই ও বেজিংয়ে কড়া লকডাউন জারি হয়েছে তার নিন্দা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য় সংস্থা। এই ‘জিরো কোভিড’ নীতি যে একদমই কাজের কথা নয়, তা জানিয়েছে ‘হু’। এপ্রসঙ্গে WHO প্রধান টেড্রোস আধানম ঘেব্রিয়েসাস (Tedros Adhanom Ghebreyesus) জানিয়েছেন, ”আমরা চিনা বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে এই সমস্যাটি নিয়ে আলোচনা করেছি এবং আমরা ইঙ্গিত দিয়েছি যে পদ্ধতিটি টেকসই হবে না।”

[আরও পড়ুন: ধপাস! নাতির সঙ্গে সমুদ্রে ঘুরতে গিয়ে সৈকতে পা পিছলে পড়ে গেলেন মদন মিত্র, ভাইরাল ভিডিও]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে