BREAKING NEWS

১৭ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শনিবার ৪ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

ব্রাত্য মমতা-রাহুল! কেজরিওয়ালের শপথে আমন্ত্রণ পাচ্ছেন না বিরোধী নেতারা

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: February 13, 2020 2:16 pm|    Updated: February 13, 2020 2:16 pm

Arvind Kejriwal's third oath ceremony will feature no political leaders

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দিল্লিতে কেজরিওয়ালের (Arvind Kejriwal) জয় নিশ্চিত হওয়ার পরই তাঁকে শুভেচ্ছায় ভরিয়ে দিয়েছেন বিরোধী শিবিরের নেতানেত্রীরা। খোদ তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) কেজরিওয়ালকে ফোন করে জয়ের শুভেচ্ছা জানান। টুইট করেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী থেকে শুরু করে পি চিদম্বরম পর্যন্ত। অন্যান্য একাধিক বিরোধীদল শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীও আম আদমি পার্টি সুপ্রিমোকে শুভেচ্ছা জানান। প্রত্যাশা করা হচ্ছিল, কেজরিওয়ালের শপথেও তাঁরা আমন্ত্রণ পাবেন। আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি দিল্লির রামলীলা ময়দানে আপ সুপ্রিমো যখন তৃতীয়বারের জন্য দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেবেন, তখন তাঁর সেই শপথের মঞ্চ হবে বিরোধী ঐক্যের প্রদর্শনী মঞ্চ। কিন্তু আপ সূত্রের খবর, তেমন কিছুই হচ্ছে না। নিজের শপথে কোনও বিরোধী মুখ্যমন্ত্রী বা বিরোধী রাজনৈতিক নেতাকেই আমন্ত্রণ জানাবেন না কেজরিওয়াল।

Mamata-Kejriwal
আম আদমি পার্টি (Aam Aadmi Party) নেতা তথা দিল্লির বিদায়ী মন্ত্রী গোপাল রাই কয়েকটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন,”অন্য কোনও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বা রাজনৈতিক নেতাকে আমন্ত্রণ জানানো হবে না। এটা শুধুমাত্র দিল্লির মানুষের অনুষ্ঠান হতে চলেছে।” দিল্লির বিদায়ী উপমুখ্যমন্ত্রী মণীশ শিসোদিয়া আগেই জানিয়েছিলেন, “দিল্লির প্রত্যেক নাগরিক তাঁদের ছেলে এবং ভাইকে আশীর্বাদ করতে আসতে পারেন। তাঁরা প্রত্যেকেই আমন্ত্রিত।” আপ সূত্রের খবর, শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানকে রাজনৈতিক না করে দিল্লিবাসীর জন্য উৎসবের বাতাবরণ তৈরি করতে চাইছেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই উদ্দেশ্যেই আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে আম দিল্লিবাসীকে। আর হ্যাঁ, সেই সঙ্গে আমন্ত্রণ পেয়েছে ভোটের ফলপ্রকাশের পর ভাইরাল হওয়া খুদে ‘মাফলারম্যান’ও।

[আরও পড়ুন: দেশজুড়ে ঝাড়ু ঝড়, ২৪ ঘণ্টায় আপে যোগ দিলেন ১১ লাখ নতুন সদস্য]

[আরও পড়ুন: ‘মাদ্রাসা-স্কুলে হনুমান চালিশা পাঠ বাধ্যতামূলক করুন’, কেজরিওয়ালকে পরামর্শ কৈলাসের]

একসময় বিরোধী জোটের অন্যতম মুখ ছিলেন। ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করারও পক্ষে ছিলেন। কিন্তু, লোকসভা মিটতেই তিনি মনোনিবেশ করেন দিল্লির রাজনীতিতে। আর তারই সুফল পেয়েছেন আম আদমি পার্টি কনভেনার অরবিন্দ কেজরিওয়াল। অনেকে বলছেন, প্রশান্ত কিশোরের পরামর্শে জাতীয় রাজনীতি এবং অন্ধ মোদি-বিরোধিতা থেকে নিজেকে দূরে রাখাটাই দিল্লিতে কেজরিওয়ালের সাফল্যের মূলধন। নির্বাচন জয়ের পরও সেই সাফল্যের চাবিকাঠি থেকে সরে আসছেন না আপ সুপ্রিমো। তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার সময় তাই কোনও বিরোধী নেতানেতৃকে আমন্ত্রণ জানাবেন না তিনি। অন্তত, দলীয় সূত্রে এমনটাই খবর।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে