BREAKING NEWS

১০ মাঘ  ১৪২৭  রবিবার ২৪ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘এতটা অন্ধ হলেন কী করে?’ কৃষক আন্দোলনের বৃদ্ধাকে ‘ভুয়ো’ বলায় কঙ্গনাকে কটাক্ষ দিলজিতের

Published by: Biswadip Dey |    Posted: December 3, 2020 2:34 pm|    Updated: December 3, 2020 2:44 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না কঙ্গনা রানাউতের (Kangana Ranaut)। এবার কৃষক আন্দোলনে যোগ দেওয়া এক বৃদ্ধাকে ‘শাহিনবাগের দাদি’ বিলকিস বানোর (Bilkis Bano) সঙ্গে গুলিয়ে ফেলা ও তাঁর সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য করায় বিপাকে বলিউড অভিনেত্রী। পরে ভুল বুঝে টুইটটি মুছে ফেললেও ইতিমধ্যেই তাঁকে আইনি নোটিস পাঠিয়েছেন আইনজীবী হরকম সিং। পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়াতেও অনেকেই কঙ্গনার বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন। সেই তালিকায় নতুন সংযোজন বলিউড অভিনেতা ও গায়ক দিলজিৎ দোসাঞ্জ (Diljit Dosanjh)।

যে মহিলাকে কঙ্গনা বিলকিস বানো বলে ভুল করেছিলেন, তাঁর আসল নাম মহিন্দর কউর। তাঁর একটি ভিডিও পোস্ট করে দিলজিৎ কঙ্গনার উদ্দেশে লেখেন, ‘‘এটা শুনে নিন কঙ্গনা। এতটা অন্ধ কেউ কী করে হতে পারে। যা খুশি তাই বলে চলেন!’’ প্রসঙ্গত, দিলজিতের আগেই প্রিন্স নরুলা, সারগুন মেহতা, হিমাংশি খুরানা ও আরও অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় কঙ্গনার ওই পোস্টের কড়া সমালোচনা করেন। 

[আরও পড়ুন: নিজেকে রূপান্তরকামী ঘোষণা করলেন ‘এক্স-মেন’ খ্যাত হলিউড অভিনেত্রী, পালটালেন নাম]

ঠিক কী লিখেছিলেন কঙ্গনা? কয়েক দিন আগে মহিন্দর কউরের ছবি ‘শাহিনবাগের দাদি’-র ছবি ভেবে পোস্ট করে তিনি কটাক্ষ করে লেখেন, “হা! হা! ইনি তো সেই দাদি, যাঁকে টাইমস ম্যাগাজিনের প্রভাবশালী ব্যক্তিত্বদের তালিকায় রাখা হয়েছিল। এঁকে তো ১০০ টাকার বিনিময়েই পাওয়া যায়। পাক সংবাদিকরা আন্তর্জাতিক মঞ্চে এঁকে ভারতের সম্মানহানির জন্য PR হিসেবে প্রদর্শন করছে। আন্তর্জাতিক মঞ্চে আমাদের কথা বলার জন্যও লোক প্রয়োজন।”

যে বৃদ্ধার ছবি নিয়ে এত শোরগোল, তিনি মহিন্দর কউর। ৭৩ বছরের ওই বৃদ্ধাও কঙ্গনার বিরুদ্ধে ক্ষোভপ্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, ‘উনি‌ কখনও আমার বাড়িতে আসেননি। জানেনও না আমি কী করি। অথচ বলে দিলেন আমায় ১০০ টাকায় পাওয়া যায়! অত্যন্ত খারাপ কথা এটা। আমি কী করব একশো টাকা দিয়ে। আমার তিন মেয়েরই বিয়ে হয়ে গিয়েছে। ছেলে তার স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে আমার সঙ্গে থাকে।’’

[আরও পড়ুন: তাঁর ছবি ব্যবহার করে ভুয়ো প্রোফাইল, মেজাজ হারিয়ে ‘অশালীন’ কটূক্তি শ্রীলেখার]

এই বয়সেও তিনি যথেষ্ট পরিশ্রম করেন বলে জানিয়েছেন মহিন্দর। জানিয়েছেন, তিনি এখনও কাস্তে দিয়ে ফসল কাটেন এবং ফসলের যত্ন নেন নিয়মিত। এদিকে আইনজীবী হরকম সিং তাঁর পাঠানো নোটিসে কঙ্গনাকে এক সপ্তাহের মধ্যে ক্ষমা চাইতে বলেছেন। অন্যথায় অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিন‌ি।

এদিকে যাবতীয় বিতর্কের মধ্যে চুপ নেই কঙ্গনাও। তিনি টুইট করে পালটা আক্রমণ করেন দিলজিৎকে। তাঁকে ‘করণ জোহরের পোষ্য’ বলেও কটাক্ষ করেন তিন‌ি। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement