৪ শ্রাবণ  ১৪২৬  শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সম্প্রতি, মালিকানা বদলেছে ভারতীয় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম মাইলস্টোন আইকনিক আর কে স্টুডিওর। বর্তমানে কাপুর পরিবারের জ্যেষ্ঠ সদস্য রণধীর কাপুর ছাড়া পরিবারের অন্য কাউকে এযাবৎকাল সেভাবে মুখ খুলতে দেখা যায়নি এপ্রসঙ্গে। তবে, রণধীর এবং তাঁর মেয়ে করিনার পর এই প্রথমবার আর কে স্টুডিও নিয়ে প্রকাশ্যে কথা বললেন রাজ কাপুরের নাতি রণবীর কাপুর। আবেগঘন রণবীর জানান, আর কে স্টুডিওর বিক্রি হওয়া নিয়ে অবশ্যই একটা দুঃখ থেকে যাবে, কিন্তু এই স্টুডিওর ঐতিহ্যকে তিনি এগিয়ে নিয়ে যাবেন ভবিষ্যতে।

[আরও পড়ুন:  দীপিকা ‘আদুরে’, নিউইয়র্কে ঋষিকে দেখতে গিয়ে নয়া তকমা পেলেন রণবীর-ঘরনি]

রণবীর বলেন, “আর কে স্টুডিও বিখ্যাত হয়েছিল আমার ঠাকুরদার জন্যে। তাঁর প্রতিভা এবং ছবি তৈরির জন্যেই তিনি এই স্টুডিও তৈরি করেছিলেন। খারাপ তো লাগছেই যে স্টুডিওটা আর থাকবে না। তবে ‘আর কে’ আমাদের মধ্যে রয়েছে…। সেই ঐতিহ্যকে আমি আমার কাজের মাধ্যমে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করব। ভবিষ্যতে ছবি প্রযোজনা করে এবং পরিচালনা করে, ঠাকুরদার ঐতিহ্যকে এগিয়ে নিয়ে যাব।”

এপ্রসঙ্গে করিনা বলেন, “আমি আর করিশ্মা অনেক আগে থেকেই আমাদের কাপুর খানদানের ঐতিহ্য বহন করে আসছি। সিনেমা আমাদের রক্তে। আমাদের পাশাপাশি এখন তো রণবীরও রয়েছে। আমাদের কাজের মধ্যে দিয়েই আমরা আমাদের পারিবারিক ঐতিহ্যকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। আশা করি, আমাদের সন্তানরা কাপুর খানদানের পারিবারিক ঐতিহ্য আরও এগিয়ে নিয়ে যাবে তাঁদের কাজের মধ্য দিয়ে।”

[আরও পড়ুন:  স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আসছে অরিন্দম শীলের থ্রিলার ‘সত্যমেব জয়তে’]

‘বরসাত’ (১৯৪৯), ‘আওয়ারা’ (১৯৫১), ‘বুট পলিশ’ (১৯৫৪), ‘শ্রী ৪২০’ (১৯৫৫), ‘জাগতে রহো’ (১৯৫৬), ‘জিস দেশ মে গঙ্গা বেহতি হ্যায়’ (১৯৬০), ‘মেরা নাম জোকার’ (১৯৭০), ‘ববি’ (১৯৭৩), ‘সত্যম শিবম সুন্দরম’ (১৯৭৮) থেকে রাজ কাপুরের পরিচালনায় শেষ ছবি ‘রাম তেরি গঙ্গা ময়লি’। আর কে ব্যানারের শেষ ছবি ‘আ আব লট চলে’ (১৯৯৯)। শুটিং হয়েছিল এই স্টুডিওতেই। এমন বহু আইকনিক সিনেমা তৈরির সাক্ষী রাজ কাপুর প্রতিষ্ঠিত আর কে স্টুডিও। দিন কয়েক আগেই হাত বদল হয়েছে বলিউডের কাপুর পরিবারের এই ঐতিহ্যবাহী সম্পত্তির। বর্তমান মালিক গদরেজ প্রপার্টি। ২০১৭ সালে ১৬ সেপ্টেম্বরে এক বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ডের পর আর কে স্টুডিয়ো পুনর্নিমাণের ভাবনাটুকুও ঝেড়ে ফেলেন কাপুর খানদান। ভারাক্রান্ত হৃদয়ে স্টুডিও বিক্রির সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা। স্মৃতিজড়ানো সেই বাগান, স্টুডিওর করিডোর যে আর তাঁদের থাকবে না, সেই নিয়ে এর আগে বহুবার স্মৃতি রোমন্থন করতে গিয়ে আবেগঘন হয়ে পড়েছিলেন রণধীর কাপুর এবং মেয়ে করিনা কাপুর খান। এবার মুখ খুললেন রণবীর কাপুর।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং