BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

থামছে না সাহায্যের হাত! বৃদ্ধার আমফান বিধ্বস্ত বাড়ি মেরামতির দায়িত্ব নিলেন দেব

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: August 27, 2020 6:20 pm|    Updated: September 1, 2020 5:36 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সাক্ষাৎ ঈশ্বরের দূতই বটে! পরিযায়ীদের ঘরে ফেরানোর পর এবার বাংলার প্রবীন নাগরিকদের জন্য এগিয়ে এলেন সাংসদ দেব। কোথায় ওষুধ পৌঁছতে হবে, কার চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে, কোথাও বা আবার আমফান বিধ্বস্ত বৃদ্ধার ভেঙে পড়া বাড়ি মেরামতির দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন সাংসদ।

এদিকে বলিউডের সোনু সুদ, জনসাধারণের দুর্দিনে একের পর এক সাহায্য করে চলেছেন। তবে আমাদের ঘরের ছেলেই বা কম যান কোথায়? তাঁর খোঁজ রাখেন? বাইরের দেশ থেকে পরিযায়ীদের বাড়ি ফেরানো, করোনা রোগিকে হাসপাতালে ভরতি করা, প্লাজমা জোগাড় করা, লকডাউনের মধ্যেও যাতে পরীক্ষাকেন্দ্রে যাতে ছাত্রছাত্রীরা পৌঁছতে পারেন, সেই ব্যবস্থা করা, কোথায় দুস্থ বৃদ্ধ মাস্ক বিক্রেতা, সোশ্যাল মিডিয়া থেকে তাঁর খবর জানতে পেরে সাহায্যের হাত বাড়ানো.. এরকম একাধিক সমস্যায় দেবদূতের মতো হাজির হয়েছেন সাংসদ অভিনেতা দেব। রাজনৈতিক স্বার্থ, কিংবা রঙের বাইরে গিয়েই এই অতিমারী আবহে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন মানবিকতার খাতিরে। আবার ফের একবার মানবিকতার নজির গড়লেন সাংসদ দেব। আমফান বিধ্বস্ত বৃদ্ধার পাশে দাঁড়ালেন।

পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোণার রামগঞ্জের এক বৃদ্ধা উষা দলুই। আমফানে মাথা গোঁজার সম্বলটুকু এলোমেলো হয়ে গিয়েছে। আত্মী-স্বজন তিনকূলে তাঁকে দেখার মতো কেউ নেই। সুপার সাইক্লোনের তাণ্ডবে তাঁর মাটির ঘরের ছাউনির এমন অবস্থা হয়েছে যে, যেকোনও সময়ে হুড়মুড়িয়ে ধসে পড়তে পারে। অতঃপর এই শেষ বয়সে এসেও আমফানের পর গত তিন মাস ধরে প্রতিটা মুহূর্ত তাঁকে মৃত্যুভয় নিয়ে কাটাতে হচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় উষাদেবীর এই করুণ কাহিনিই এক নেটজনতা তুলে ধরেছিলেন। আর তা সাংসদের চোখে পড়তেই, তড়িঘড়ি বৃদ্ধার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন তাঁর ব্যক্তিগত সচিব।

[আরও পড়ুন: ভারতীয় সংবিধানকে ‘অপমান’! দেশদ্রোহিতার মামলা কঙ্গনার বিরুদ্ধে]

আমফান বিধ্বস্ত বৃদ্ধাই নন শুধু, শহরের প্রবীন নাগরিকদের কে কোথায় ওষুধ পাচ্ছেন না, সেক্ষেত্রেও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন দেব। গতকালই ফেসবুকে এক মহিলা জানিয়েছিলেন যে, তাঁর স্বামী ব্লাউজ সেলাইয়ের কাজ করতেন। কিন্তু লকডাউনে কাজ খুইয়েছেন। দুজনের সমসারে নিদারুণ আর্থিক কষ্টের জন্য ওষুধ কিনতে পারছেন না। আর সেই কাতর আর্তি দেবের কাছে পৌঁছতেই অত্যন্ত তৎপরতার সঙ্গে ওষুধ কিনে পাঠান তাঁদের জন্য। শুধু তাই নয়, এক ক্যানসার আক্রান্ত বৃদ্ধের চিকিৎসারও ব্যবস্থা করে দিয়েছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: ‘NEET-JEE নিয়ে মোদি সরকারের সিদ্ধান্তে আপনি চুপ কেন?’, ধনকড়কে খোঁচা নুসরতের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement