৩০ আশ্বিন  ১৪২৬  শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘গোহত্যায় জড়িত বিজেপি।’ প্রার্থী হতে না পেরে এভাবেই নিজের রাগ প্রকাশ করলেন সামাজিক ন্যায় ও ক্ষমতায়ন মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী বিজয় সাম্পলা। গত লোকসভা নির্বাচনে পাঞ্জাবের হোসিয়ারপুর আসন থেকে বিজেপির টিকিটে সাংসদ হয়েছিলেন তিনি। কিন্তু, এবার তাঁকে টিকিট না দিয়ে ফাগওয়ারার বিধায়ক সোম প্রকাশকে দাঁড় করিয়েছে দল।

[আরও পড়ুন-কেরলে ‘রাহুল ঝড়’! রেকর্ড সংখ্যক ভোট পড়ল ঈশ্বরের আপন দেশে]

আর এতেই রেগে যান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। প্রথমেই টুইটার অ্যাকাউন্টে নিজের নামের আগে থাকা ‘চৌকিদার‘ শব্দটি সরিয়ে দেন। তারপর টুইট করেন, “বিজেপি গোহত্যা করছে দেখে খুব বাজে লাগছে।” পরের টুইটটিতে নিজের স্বচ্ছ ইমেজের কথা উল্লেখ করে কোন ভুলের জন্য পার্টি তাঁকে টিকিট দিল না তাও জানতে চেয়েছেন তিনি। তাঁর প্রশ্ন. “আমার কী দোষ আছে তা জানানো উচিত। আমার নামে দুর্নীতির কোনও অভিযোগ নেই। আচরণ নিয়েও কেউ আঙুল তুলতে পারবে না। নির্বাচনী কেন্দ্রে এয়ারপোর্ট বানিয়েছি, রেলগাড়ি চালিয়েছি, রাস্তা বানিয়েছি। এটা যদি ভুল হয়, পরের প্রজন্মকে বলব, এসব ভুল যেন না করে।”

[আরও পড়ুন-দাঙ্গায় গণধর্ষণের শিকার, বিলকিস বানোকে ক্ষতিপূরণে সুপ্রিম নির্দেশ গুজরাট সরকারকে]

দলীয় সূত্রে খবর, একজন্ প্রতিশ্রুতিবান দলিত নেতা হিসেবে বিজেপির কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে যথেষ্ট জনপ্রিয় বিজয় সাম্পলা। সংসদে পিছিয়ে পড়া সম্প্রদায়ের পড়ুয়াদের জন্য মাধ্যমিকের পর স্কলারশিপ দেওয়ার জন্য অনেকবার আলোচনা করেছেন তিনি। এমনকী কেন্দ্রীয় সরকার টাকা দেওয়ার পরেও পাঞ্জাবের কংগ্রেস সরকার আদিবাসী পড়ুযাদের পড়াশোনার জন্য সেভাবে উদ্যোগী নয় বলেও অভিযোগ করেছিলেন কয়েকদিন আগে।

[আরও পড়ুন-কংগ্রেসের হয়ে প্রচার, পদকজয়ী কুস্তিগিরের বিরুদ্ধে দায়ের অভিযোগ]

এদিকে দলে যোগ দেওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সানি দেওলকে গুরুদাসপুর আসন থেকে প্রার্থী করার কথা ঘোষণা করে বিজেপি। প্রয়াত হওয়ার আগে বিজেপির টিকিটে গুরুদাসপুর থেকে চারবার সাংসদ হয়েছিলেন অভিনেতা বিনোদ খান্না। কিন্তু, ২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে তাঁর  মৃত্যুর পর উপনির্বাচনে জয়ী হন কংগ্রেস প্রার্থী সুনীল জাখর।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং