BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘দিল্লির সৌন্দর্যায়ন প্রকল্প বন্ধ করুন’, করোনা মোকাবিলায় মোদিকে পাঁচ দফা পরামর্শ সোনিয়ার

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: April 7, 2020 3:41 pm|    Updated: April 7, 2020 3:41 pm

An Images

সোমনাথ রায়, নয়াদিল্লি: করোনা মোকাবিলায় সাংসদদের বেতন ৩০ শতাংশ কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। অনেকের মতো কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের সমর্থনে এগিয়ে এসেছেন কংগ্রেসের কার্যনির্বাহী সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী। প্রধানমন্ত্রী ও কেন্দ্রের সিদ্ধান্তকে পূর্ণ সমর্থন জানানোর পাশাপাশি করোনা মোকাবিলায় নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখে পাঁচ দফা পরামর্শও দিয়েছেন রায়বরেলির সাংসদ। সংবাদমাধ্যমে সরকারি বিজ্ঞাপন, দিল্লির সৌন্দর্যায়নে ২০ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ, সরকারি টাকায় বিদেশ সফর বন্ধ করার জন্য আরজি জানিয়েছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, সোমবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, করোনা মোকাবিলায় সাংসদদের বেতন ৩০ শতাংশ কমানো হবে। এই সিদ্ধান্তকে অনেকেই সমর্থন করেছেন এই বিপদের সময়। বাকিদের মতো কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধীও কেন্দ্রেরর সিদ্ধান্তের সমর্থন করেছেন। তবে তার সঙ্গে জরুরি পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখে পাঁচ দফা পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। তিনি লিখেছেন, এই মুহূর্তে দেশের অনেক অর্থের প্রয়োজন। তাই কেন্দ্রের উচিত বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের বরাদ্দ বন্ধ করা উচিত। উদাহরণস্বরূপ তিনি দিল্লির প্রাণকেন্দ্রে ২০ হাজার কোটি টাকার সৌন্দর্যায়ন প্রকল্প বাতিল করার পরামর্শ দিয়েছেন। এই প্রকল্পের অধীনে দিল্লিতে ঐতিহাসিক সরকারি ভবনগুলির সংস্কার ও সৌন্দর্যায়ন করার কথা। সোনিয়া লিখেছেন, ‘এই সময় এগুলি অপ্রয়োজনীয়। আমি নিশ্চিত পুরনো ভবনগুলি থেকেই সংসদীয় কাজকর্ম চলতে পারবে।’ তাঁর মতে, এই টাকা দিয়ে হাসপাতালগুলির পরিকাঠামোর মানোন্নয়ন ও ডাক্তার-স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য পিপিই, মেডিক্যাল সরঞ্জামের বন্দোবস্ত করা যেতে পারে।

[আরও পড়ুন: দেশে টানাটানি সত্বেও সার্বিয়াতে চিকিৎসা সরঞ্জাম রপ্তানি! কেন্দ্রকে তোপ কংগ্রেসের]

এছাড়াও তিনি লিখেছেন, এই কঠিন সময়ে সরকারের উচিত সমস্ত টিভি চ্যানেল, সংবাদপত্র, ডিজিটাল মিডিয়ায় আগামী ২ বছরের জন্য সরকারি বিজ্ঞাপন বন্ধ করে দেওয়া। শুধুমাত্র করোনা সংক্রান্ত স্বাস্থ্য সচেতনতার বিজ্ঞপ্তি ছাড়া বাকি সব বিজ্ঞাপন এখন অর্থহীন। তিনি লিখেছেন, প্রধানমন্ত্রী-সহ রাষ্ট্রপতি, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, মুখ্যমন্ত্রী, রাজ্যের মন্ত্রী ও আমলাদের সরকারি অর্থে বিদেশ সফর স্থগিত করা উচিত। তিনি উল্লেখ করেছেন, শুধুমাত্র প্রধানমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের বিদেশ সফরের জন্য গত পাঁচ বছরে ৩৯৩ কোটি সরকারি কোষাগার থেকে বেরিয়েছে। এই টাকা COVID-19 এর মোকাবিলা করার জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে। একইসঙ্গে তিনি লিখেছেন, পিএম-কেয়ার ফান্ডকে প্রধানমন্ত্রী জাতীয় ত্রাণ তহবিলের সঙ্গে মিশিয়ে দেওয়া উচিত। তাহলে তহবিলের স্বচ্ছতা ও গ্রহণযোগ্যতা থাকবে। এই প্রসঙ্গে তিনি উল্লেখ করেছেন, প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে এখনও ৩৮০০ কোটি টাকা অব্যবহৃত হয়ে পড়ে রয়েছে। এই সবকটি তিনি প্রধানমন্ত্রীকে পরামর্শ হিসাবে লিখেছেন। করোনা মোকাবিলায় গোটা দেশের সমস্ত রাজনৈতিক দল, জনগণ কেন্দ্রের পাশে রয়েছে সে কথাও জানাতে ভোলেননি সোনিয়া।

[আরও পড়ুন: বন্ধ ১০০ দিনের কাজ, শ্রমিকদের জন্য একুশ দিনের আগাম মজুরির দাবি কংগ্রেসের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement