১৪ মাঘ  ১৪২৯  রবিবার ২৯ জানুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

‘আমাকে অপমান করার প্রতিযোগিতা চলছে কংগ্রেসে’, রাবণ প্রসঙ্গে পালটা আক্রমণ মোদির

Published by: Anwesha Adhikary |    Posted: December 1, 2022 1:23 pm|    Updated: December 1, 2022 1:23 pm

Competition in Congress to insult me, says Modi amidst Ravana remark | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে (Narendra Modi) ‘রাবণ’ বলেছিলেন কংগ্রেস সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়্গে (Mallikarjun Kharge)। সেই ঘটনার দু’দিন পরে মুখ খুললেন প্রধানমন্ত্রী। গুজরাটে ভোটের প্রচারে গিয়ে তিনি বললেন, আসলে কংগ্রেসের অন্দরে প্রতিযোগিতা চলছে। মোদিকে কে সবচেয়ে খারাপভাবে অপমান করতে পারেন, সেই লড়াইয়ে নেমেছেন কংগ্রেসের নেতা-কর্মীরা। কতখানি নির্লজ্জ ভাবে দেশের প্রধানমন্ত্রীকে অপমান করা যায়, সেই নিয়েই ব্যস্ত রয়েছেন কংগ্রেসে নেতারা।

বৃহস্পতিবারই গুজরাটে (Gujarat Assembly Election) প্রথম দফার ভোট। এদিনই ভোটপ্রচারে গিয়ে কংগ্রেসে নেতাদের পালটা আক্রমণ করেন মোদি। ভাষণ দিতে গিয়ে তিনি বলেন, “কংগ্রেসের মধ্যে মোদিকে অপমান করার প্রতিযোগিতা চলছে। কত খারাপ শব্দ ব্যবহার করে, কতটা তীব্রভাবে আক্রমণ করা যায়-তা নিয়েই মেতে রয়েছেন কংগ্রেস নেতারা। কিছুদিন আগেই এক কংগ্রেস নেতা বলেছিলেন, কুকুরের মতো মৃত্যু হবে মোদির। কেউ আবার বলেছে মোদি হিটলারের মতো মরবে।”

[আরও পড়ুন: ‘হিন্দি আগ্রাসন’ বরদাস্ত নয়, বিক্ষোভের জেরে তামিলনাড়ুর স্টেশনের সাইনবোর্ডে সরল হিন্দি শব্দ]

ভোটপ্রচারের মঞ্চে খাড়্গের মন্তব্যও টেনে আনেন মোদি। “কেউ আমাকে রাবণ বলছেন, রাক্ষস বলেছেন। আরশোলা বলতেও থামেননি কংগ্রেস নেতারা”, বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁর মতে, গুজরাটের মানুষ যেভাবে মোদিকে সমর্থন করেছেন তাতে ভয় পেয়েছে কংগ্রেস। সেই জন্যই তাঁর নামে উলটোপালটা কথা বলছেন বিরোধীরা। তবে মোদি আরও বলেছেন, “খাড়্গেকে আমি সম্মান করি। এই ধরণের কথা বলতে বাধ্য করা হয়েছে বলেই তিনি বলেছেন।”

প্রসঙ্গত, আহমেদাবাদের বেহরামপুরার জনসভায় খাড়্গেকে বলতে শোনা গিয়েছে, ”আমরা আপনার (মোদি) মুখটা পুরসভার ভোটে দেখছি, বিধানসভার নির্বাচনে দেখছি আবার সাংসদ নির্বাচনেও দেখছি। আপনার কি রাবণের মতো ১০০টা মাথা?” পরে বিশদে বিষয়টি ব্যাখ্যা করতে গিয়ে খাড়গে বলেন, ”মোদিজির নামেই তো ভোট চাওয়া হচ্ছে। সে পুরসভা নির্বাচন হোক বা বিধানসভা। কিন্তু ভোট তো প্রার্থীর নামেই চাওয়া উচিত। মোদি কি পুরসভার হয়ে কাজ করতে আসবেন? আপনার যখন দরকার পড়বে উনি এসে আপনাকে সাহায্য করবেন?” এই মন্তব্যের পরে পালটা দিয়েছিল বিজেপি। অবশেষে মুখ খুললেন প্রধানমন্ত্রী। 

[আরও পড়ুন:সাময়িক স্বস্তিতে অনুব্রত, ৭ ডিসেম্বর অবধি স্থগিত কেষ্টর দিল্লি যাত্রা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে