৩ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

গোরক্ষপুর শিশুমৃত্যুর চারবছর পর বরখাস্ত ডা. কাফিল খান, ‘দোষ প্রমাণ হয়নি’ তোপ চিকিৎসকের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: November 12, 2021 9:42 am|    Updated: November 12, 2021 9:44 am

Dr Kafeel khan sacked by Uttar Pradesh government over laxity

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশের ভোটের মুখে ডাঃ কাফিল খানকে (Kafeel Khan) বরখাস্ত করল উত্তরপ্রদেশ সরকার। অভিযোগ, চারবছর আগে গোরক্ষপুর বিআরডি কলেজের শিশুমৃত্যু ঘটেছিল তাঁর গাফিলতিতেই। কাফিলের সঙ্গে আর যে সাতজন চিকিৎসক অভিযুক্ত ছিলেন, তাঁরা কেউই শাস্তি পাননি। শাস্তি পেলেন শুধু এই ‘প্রতিবাদী’ চিকিৎসক। অথচ, আদালত এই মামলায় আগেই তাঁকে ক্লিনচিট দিয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই সরকারি ফরমানে ক্ষোভে ফুঁসে উঠেছেন কাফিল। জানিয়ে দিয়েছেন, এই অন্যায়ের প্রতিবাদে তিনি আদালতে যাবেন।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুর বিআরডি হাসপাতালে (BRD Medical College) একদিনে অক্সিজেনের অভাবে প্রাণ গিয়েছিল ৬০ শিশুর। ক্ষমতায় আসার চার মাসের মাথায় এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটায় চরম অস্বস্তিতে পড়েছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath)। সঙ্গে সঙ্গে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল ওই হাসপাতালের শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. কাফিল খানকে। আরও ৭ জন চিকিৎসকের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়। কিছুদিন বাদে কাফিল খানকে গ্রেপ্তার করে ন’মাসের জন্য জেল হেফাজতেও পাঠায় প্রশাসন। যদিও পরে কাফিলের বিরুদ্ধে কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। কাফিলের পালটা দাবি ছিল, প্রশাসনিক স্তরে দুর্নীতিকে আড়াল করতেই তাঁকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। তারপর থেকেই লাগাতার উত্তরপ্রদেশ তথা কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে প্রচার চালিয়ে আসছেন কাফিল। বারবার সরকারের তোপের মুখেও পড়তে হয়েছে তাঁকে।

[আরও পড়ুন: শৌচাগারে গিয়ে ‘মজা’ করার কুপ্রস্তাব! ভাইরাল ভিডিও, গ্রেপ্তার যোগীরাজ্যের সরকারি অফিসার]

১০ নভেম্বর অর্থাৎ বুধবার ওই ঘটনার জেরে কাফিলকে সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে উত্তরপ্রদেশ সরকার। উত্তরপ্রদেশ সরকারের এক আধিকারিক জানিয়েছেন,”তদন্তে দোষী প্রমাণিত হওয়ার পরই কাফিল খানকে বরখাস্ত করা হয়েছে। কিন্তু এটা বিচারাধীন বিষয় হওয়া এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য দেওয়া সম্ভব নয়।” অথচ, সরকার নিযুক্ত তদন্ত কমিটিই দু’বছর আগে কাফিল খান-সহ সাসপেন্ড সকলের বিরুদ্ধে কর্তব্যে গাফিলতি এবং চক্রান্তের অভিযোগ খারিজ করে দেয়। স্বাভাবিকভাবেই সরকারের গাফিলতির যুক্তি মানতে নারাজ কংগ্রেস (Congress)। তাঁদের সাফ কথা, কাফিলের বরখাস্ত হওয়ার ঘটনায় উত্তরপ্রদেশ সরকারের ঘৃণ্য সাম্প্রদায়িক রূপ প্রকাশ্যে চলে এল।”

[আরও পড়ুন: ‘উগ্র হিন্দুত্ব বোকো হারাম বা আইসিসের মতোই বিপজ্জনক’, সলমন খুরশিদের বক্তব্যে বিতর্ক]

কাফিল নিজে অবশ্য জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আদালতে যাবেন। টুইটে বরখাস্ত হওয়ার নোটিস পোস্ট করে ‘প্রতিবাদী’ চিকিৎসক জানিয়েছেন,”সরকার অক্সিজেন সরবরাহকারীদের দাম না মেটানোয় ৬৩টি শিশুর মৃত্যু হল। ৮ জন ডাক্তার ও স্থাস্থ্যকর্মীকে সাসপেন্ড করা হল। এদের মধ্যে ৭ জনকে বেকসুর খালাস করা হল। অথচ অবহেলা ও দুর্নীতির অভিযোগ থেকে তদন্ত কমিটি সম্পূর্ণ রেহাই দেওয়ার পরেও আমাকে বরখাস্ত করা হল। ন্যায় অন্যায় আপনারাই বিচার করুন।”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে