BREAKING NEWS

১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  রবিবার ২৯ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

শারীরিক অবস্থা অতি সংকটজনক, করোনাজয়ী হয়েও ভেন্টিলেশনে অসমের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: November 22, 2020 3:13 pm|    Updated: November 22, 2020 3:32 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা (Coronavirus) মহামারী জয়ের পরও সুস্থতা নয়, বরং আরও অবনতির পথে অসমের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা তরুণ গগৈ (Tarun Gogoi)। সাম্প্রতিক খবর অনুযায়ী, একাধিক অঙ্গ বিকল হয়ে তিনি আপাতত গুয়াহাটি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভেন্টিলেশনে চিকিৎসাধীন। শ্বাসকষ্টের প্রবল সমস্যা রয়েছে। তরুণ গগৈর স্বাস্থ্য সম্পর্কে খবর নিশ্চিত করেছেন অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। এই মুহূর্তে তাঁকে নিয়ে চরম উদ্বেগ অসমের কংগ্রেস মহলে। সুস্থতা কামনা করছেন উদ্বিগ্ন অনুগামীরা।

গত আগস্টে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন বছর ছিয়াশির তরুণ গগৈ। বেশ কিছু শারীরিক সমস্যা থাকায় হাসপাতালে ভরতি হতে হয়। প্রায় দু’মাস সেখানে চিকিৎসাধীন ছিলেন অসমের তিনবারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। করোনা জয়ের পর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরেন অক্টোবরের শেষদিকে। কিন্তু নভেম্বরের শুরুতেই করোনা পরবর্তী একাধিক উপসর্গ নিয়ে তাঁকে ভরতি করাতে হয় গুয়াহাটি মেডিক্যাল কলেজে। সেখানেই চিকিৎসাধীন তিনি। তবে শনিবার বিকেল থেকে দ্রুত তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকে। হাসপাতাল সূত্রে খবর, মাল্টি-অর্গ্যান ফেলিওরের পাশাপাশি শ্বাসকষ্টের সমস্যা বাড়ে। ধীরে ধীরে অচৈতন্য হয়ে পড়েন। তাঁকে দিতে হয় ইনভেসিভ ভেন্টিলেশনে (Invasive Ventilation)।

[আরও পড়ুন: অমানবিক! বাবা না থাকলে মিলবে তাঁর চাকরি, লোভে প্রৌঢ়ের গলা কেটে খুন বেকার ছেলের]

খবর পেয়ে দ্রুত হাসপাতালে ছুটে যান তাঁর সাংসদ পুত্র গৌরব গগৈ। তাঁর পাশে ছিলেন রাজ্যের মুখ্যসচিব জিষ্ণু বড়ুয়া। এদিকে, অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী নিজে নিয়মিত হাসপাতালে গিয়ে খোঁজ নিচ্ছেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। শনিবার চিকিৎসকদের সঙ্গে তিনি এ বিষয়ে আলোচনাও করেছেন। হাসপাতাল সূত্রে খবর, কোভিড পরবর্তী জটিল শারীরিক সমস্যার জন্য দিল্লির এইমসের চিকিৎসা পদ্ধতি মেনে তরুণ গগৈর চিকিৎসা চলছে। শনিবার বিকেলে তাঁকে ভেন্টলেশনে দেওয়ার পর আপাতত ৪৮ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হবে, জানিয়েছে চিকিৎসকরা।

[আরও পড়ুন: বিজেপি নেতাদের ভিন ধর্মে বিয়েও কি লাভ জেহাদ? প্রশ্ন ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রীর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement