১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শুক্রবার ২৭ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

অমানবিক! বাবা না থাকলে মিলবে তাঁর চাকরি, লোভে প্রৌঢ়ের গলা কেটে খুন বেকার ছেলের

Published by: Biswadip Dey |    Posted: November 22, 2020 3:02 pm|    Updated: November 22, 2020 3:02 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এমনও কুসন্তান হতে পারে! বাবা মারা গেলে চাকরি পাওয়া যাবে। একথা মাথায় রেখেই তাঁর গলা কেটে খুন (Murder) করল ‘গুণধর’ ছেলে। ঝাড়খণ্ডের (Jharkhand) রামগড়ে ঘটেছে এমনই অমানবিক এক ঘটনা। মৃত কৃষ্ণ রাম কাজ করতেন সেন্ট্রাল কোলফিল্ডস লিমিটেডে। গত বৃহস্পতিবার নিজের বাড়িতে রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁর মৃতদেহ মেলে। পরে সামনে আসে আসল সত্যি।

ঠিক কী ঘটেছিল? শনিবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে সাব ডিভিশনাল পুলিশ অফিসার প্রকাশচন্দ্র মাহাতো জানিয়েছেন, অভিযুক্ত ৩৫ বছরের রাম বুধবার রাতে বারখানায় তাদের কোয়ার্টারেই বাবার গলা কেটে খুন করে। পরের দিন ৫৫ বছরের ওই ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনার অকুস্থলেই মিলেছিল একটি ছোট ছুরি। সেই সঙ্গে মৃতের মোবাইল ফোনটাও পাশে পড়েছিল‌।

[আরও পড়ুন : মথুরার আশ্রমে ‘চা’ পানের পরই মৃত্যু ২ সাধুর, এলাকায় উত্তেজনা, কাঠগড়ায় প্রশাসন]

পুলিস জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। তাদের জেরার সামন‌েই অভিযুক্ত রাম ভেঙে পড়ে। নিজের দোষ কবুলও করেছে সে। জানিয়েছে, বাবাকে সেই খুন করেছে। কিন্তু কেন নিজের বাবাকে খুন করার মতো ঘৃণ্য এক অপরাধ করল সে? রাম জানাচ্ছে, এতদিন ধরে বেকারই ছিল সে। এদিকে তার বাবা যে সংস্থায় কাজ করে সেটি আধা সরকারি। তাই তাঁকে খুন করলে সহানুভূতির কারণে চাকরি মিলতে পারে। এটা মাথায় আসার পরেই খুনের ফন্দি আঁটে সে।

প্রসঙ্গত, মৃত কৃষ্ণ রাম বারখানায় সিসিএলের ওয়ার্কশপে নিরাপত্তা কর্মীদের প্রধান ছিলেন। সংস্থার নিয়ম অনুযায়ী, চাকরিরত অবস্থায় মৃত্যু হলে মৃতের পরিবারের কেউ চাকরি পান। সেটা মাথায় রেখেই ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র করেছিল অভিযুক্ত। কিন্তু শেষরক্ষা হল না। পুলিশের জেরার মুখে সব অপরাধের কথা স্বীকারও করে নিয়েছে সে।

[আরও পড়ুন : অমিত শাহর চেন্নাই সফরে কাটল জট, বিজেপির সঙ্গে জোট অটুট রাখার সিদ্ধান্ত AIADMK’র]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement