BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২২ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

দিল্লি হিংসা মামলায় এবার গ্রেপ্তার উমর খালিদ, UAPA ধারায় মামলা দায়ের

Published by: Paramita Paul |    Posted: September 14, 2020 8:40 am|    Updated: September 14, 2020 8:48 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দিল্লির হিংসায় (Delhi Clash) মদত দেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার জেএনইউ-এর প্রাক্তন ছাত্র উমর খালিদ (Umar Khalid)। রবিবার ১১ ঘণ্টা জেরা করার পর তাঁকে গ্রেপ্তার করে দিল্লি পুলিশ। উমরের বিরুদ্ধে বেআইনি কার্যকলাপ প্রতিরোধ আইনে (UAPA) মামলা দায়ের হয়েছে।

গত ফেব্রুয়ারি মাসে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বা সিএএ-এর বিরোধিতা করে দিল্লির শাহিনবাগে আন্দোলন চলছিল। জেএনইউ-এর প্রাক্তন ছাত্র উমর খালিদ বিরুদ্ধে সেখানে উসকানিমূলক ভাষণ দেওয়ার অভিযোগ আগেই উঠেছিল। আর তাই তাঁকে নজরে রেখেছিল দিল্লি পুলিশ। ৩ আগস্ট তাকে জেরা করে দিল্লি পুলিশ। মোবাইলটিও সিজ করে। এরপর ফের রবিবার তাঁকে ম্যারাথন জেরা করে দিল্লি পুলিশের (Delhi Police) স্পেশাল সেল। তারপরই রাতে তাঁকে গ্রেপ্তার করে বলে খবর। উমরকে দিল্লি হিংসার অন্যতম ষড়যন্ত্রকারী বলে চিহ্নিত করেছে পুলিশ। তাঁদের দাবি, আম আদমি পার্টির (AAP) প্রাক্তন কাউন্সিলর তাহির হুসেনের সঙ্গে মিলে দাঙ্গার ষড়যন্ত্র কষেছিলেন উমর।

[আরও পড়ুন : রুখে দেবে রাইফেলের গুলিও, জওয়ানদের জন্য নতুন ‘রক্ষাকবচ’ আনছে কেন্দ্র]

জেএনইউ-এর প্রাক্তন ছাত্র উমরের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ এনেছে দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেল। তাঁদের দাবি, শাহিনবাগে আন্দোলন চলাকালীন উসকানিমূলক মন্তব্য করেছিলেন উমর। পাশাপাশি, মার্কিন প্রেসিডেন্টের দিল্লি সফর চলাকালীন অশান্তিতেও তিনি মদত জুগিয়েছিলেন বলে অভিযোগ করেছে পুলিশ।  যদিও সে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন উমর। 

২৩ থেকে ২৬ ফেব্রুয়ারি উত্তর-পূর্ব দিল্লির (North-East Delhi) হিংসায় ৫৩ জনের মৃত্যু হয় এবং ৫৮১ জন আহত হন। এই ঘটনার এক সাপ্লিমেন্টারি চার্জশিটে দিল্লি পুলিশ CPIM-এর সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি (Sitaram Yechury), স্বরাজ অভিযানের নেতা যোগেন্দ্র যাদব, ভীম আর্মির প্রধান চন্দ্রশেখর, উমর খালিদ-সহ আরও কিছু নেতার নাম উল্লেখ করে বলে সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের অধীন দিল্লি পুলিশের পক্ষ থেকে দু’দিন আগে বলা হয়, ঘটনায় ধৃত দেবাঙ্গনা কলিতা ও নাতাশা নারওয়াল নাকি জিজ্ঞাসাবাদের সময় জানিয়েছেন, জয়তী ঘোষ, অপূর্বানন্দ এবং রাহুল রায় তাঁদের মেন্টর এবং তাঁরাই নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) বিরোধী ধরনা চালিয়ে যেতে বলেছিলেন। দিল্লি পুলিশের অভিযোগ, “সিএএ বিরোধী এইসব সমাবেশে বড় বড় রাজনৈতিক নেতৃত্ব আসতেন, মানুষকে উত্তেজিত করতেন। মানুষ জড়ো করতেন।”

[আরও পড়ুন :বিরোধীদের ঠেকাতে মরিয়া কেন্দ্র, সংসদে লাদাখ ইস্যু নিয়ে বিবৃতি দিতে পারে মোদি সরকার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement