BREAKING NEWS

১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

লকডাউন তোলার পরিকল্পনা নিয়ে কেন্দ্র স্বচ্ছ ধারণা দিক, আবেদন রাহুল গান্ধীর

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: May 8, 2020 2:00 pm|    Updated: May 16, 2020 12:01 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা রুখতে দেশে চলছে একের পর এক লকডাউনের পর্ব। ১৭ মে শেষ হবে তৃতীয় পর্বের লকডাউন। তারপর কী? ১৭ মে-র পর কীভাবে উঠবে লকডাউন? জানতে চেয়ে কেন্দ্রের দিকে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী

সংক্রমণের ভয়াবহতা রুখতে দেশজোড়া লকডাউনের ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী রাহুল গান্ধী। ২৫ মার্চ থেকে শুরু হয়ে সেই লকডাউন। প্রথমে ২১, পরে ১৯ তারও পরে ১৪ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু কবে উঠবে এই লকডাউন? আদপেও কি উঠবে? নাকি ফের তৃতীয় পর্বের পর শুরু হবে চতুর্থ পর্ব? লকডাউন উঠিয়ে দিলেও তার পদ্ধতি কী হবে? লকডাউন পরবর্তী সরকারের পদক্ষেপ কী? এই সকল প্রশ্ন দেশবাসীকে ভাবাচ্ছে অনবরত। তাই তাঁদের প্রতিনিধি হয়ে একটি ভিডিও কনফারেন্সে কেন্দ্রকে একের পর এক প্রশ্নবাণে বিঁধলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। শুক্রবার কেন্দ্রকে লকডাউন নিয়ে তোপ দেগে সেই সংক্রান্ত স্বচ্ছ ধারনা জনসমক্ষে তুলে ধরতে বলেন ওয়ানাডের কংগ্রেস সাংসদ। তাঁর মতে, “ভারতের মত তৃতীয় বিশ্বের দেশে লকডাউন নিয়ে উদ্বেগে সাধারণ মানুষ। দিনের পর দিন ভেঙে পড়ছে দেশের অর্থনীতি। এমতাবস্থায় লকডাউন তোলার পর কী কী পদক্ষেপ সরকারের পক্ষ থেকে নেওয়া হবে তা জনগণের কাছে স্পষ্টট ধারণা থাকা আবশ্যিক। কখন লকডাউন তোলা হবে, কীভাবে তোলা হবে সেই বিষয়ে কেন্দ্রের উচিত জনগনকে সব জানানো। লকডাউন ভারতীয়দের কাছে একটা বড় ধাক্কা। মানুষের জীবনে, মানসিকতায় লকডাউ আমূল পরিবসর্তন ঘটিয়েছে। মানুষের মনে কোনও অন-অফ সুইচ নেই যা সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদলে যাবে।”

[আরও পড়ুন:আক্রান্তের বীর্যেও মিলছে করোনা জীবাণু, কতটা নিরাপদ যৌনমিলন?]

এই পরিস্থিতিতে কংগ্রেস নেতা বরাবরই কেন্দ্র ও রাজ্যকে একযোগে কাজ করার পরামর্শ দিয়েছেন। লকডাউনের পর দেশের অর্থনীতি ফেরাতে প্রথমে রিজার্ভ ব্যাংকের প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজন ও পরে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেও ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেন। পরিযায়ী শ্রমিকদের উদ্ধার-সহ দেশের সার্বিক অর্থনীতি নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তবে করোনা নিয়ে তাঁর আগাম পরামর্শে কোনও সদিচ্ছা প্রকাশ করেনি কেন্দ্রীয় সরকার।

[আরও পড়ুন:৪০ দিন ধরে নিঃশব্দে দুস্থদের মুখে খাবার তুলে দিচ্ছেন মুসলিম তরুণ, গর্বিত তপসিয়াবাসী]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement