BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘মানবকল্যাণে করোনার প্রতিষেধক তৈরির দায়িত্ব নিন’, তরুণ গবেষকদের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: April 14, 2020 12:01 pm|    Updated: April 14, 2020 12:01 pm

An Images

ফাইল ছবি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা ভাইরাস অর্থাৎ COVID-19 সম্পর্কে এখনও স্পষ্ট ধারণা তৈরি হয়নি বিজ্ঞানীদের। এর মারক রুপ গোটা পৃথিবী দেখেছে। বিশ্বব্যাপী বিজ্ঞানীরা এর ওষুধ তৈরির জন্য দিনরাত এক করে পরিশ্রম করছেন। কিন্তু এখনও COVID-19 এর কোনও প্রতিষেধক তৈরি হয়নি। এবার ভারতের তরুণ গবেষকদের করোনার প্রতিষেধক তৈরির দায়িত্ব দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। যুবসমাজের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান, আপানারা এগিয়ে আসুন, আর গোটা বিশ্বের এবং মানব জাতির কল্যাণের জন্য এই ভাইরাসের প্রতিষেধক তৈরি করুন।

[আরও পড়ুন: ‘করোনা ভারতে পা রাখার আগেই প্রস্তুতি নিয়েছিল সরকার’, দাবি প্রধানমন্ত্রীর]

এদিন জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে দেশজুড়ে লকডাউনের মেয়াদ ৩ মে পর্যন্ত করার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। লকডাউনে সাধারণ মানুষের যাতে কোনও অসুবিধা না হয়, সরকার তার সবরকম ব্যবস্থা করছে বলেও দাবি করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, সামাজিক দূরত্ব এবং লকডাউন দেশকে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সাহায্য করেছে। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী জানান, পরিকাঠামোগত দিক থেকেও দ্রুত COVID-19-এর বিরুদ্ধে লড়াই করার প্রস্তুতি নিয়ে ফেলেছে দেশ। মোদির কোথায়, “গোটা বিশ্বের অভিজ্ঞতা বলছে, ১০ হাজার মানুষের সংক্রমণ হলে ১৫০০-১৬০০ বেডের প্রয়োজন হয়। ভারতে এই মুহূর্তে ১ লক্ষ বেড প্রস্তুত আছে। ছয়শো’র বেশি হাসপাতাল আছে যেখানে শুধু করোনার চিকিৎসা হচ্ছে। পরিকাঠামোর আরও উন্নতির লক্ষ্যে দ্রুত গতিতে এগোচ্ছে ভারত।”

[আরও পড়ুন: করোনা যুদ্ধে জয়ী হতে সাতটি বিষয়ে দেশবাসীর সঙ্গ চাইলেন মোদি]

এরপরই প্রধানমন্ত্রী বলেন,”আজ হয়তো ভারতের কাছে উপযুক্ত উপকরণ নেই, কিন্তু আমি আমার যুব বিজ্ঞানীদের বলব আপানারা এগিয়ে আসুন। মানব কল্যাণের জন্য, বিশ্বের কল্যাণের জন্য করোনার প্রতিষেধক তৈরির দায়িত্ব নিন।” পাশাপাশি দেশবাসীর কাছেও প্রধানমন্ত্রী অনুরোধ করেছেন, স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যারা যুক্ত তাঁদের সম্মান করুন। প্রধানমন্ত্রী বলেন,”করোনা যোদ্ধাদের সম্মান করুন। চিকিৎসক, নার্স, পুলিশ, সাফাইকর্মী সবাইকে সম্মান করুন। আমার শিল্পপতি বন্ধুদের অনুরোধ, এই সময় কোনও কর্মীকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করবেন না।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement