BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আইএস-এ যোগ ‘শিক্ষিত’ ছেলের, প্রশাসনের দ্বারস্থ কাশ্মীরি দম্পতি

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: June 3, 2019 3:52 pm|    Updated: June 3, 2019 5:57 pm

An Images

মাসুদ আহমেদ, শ্রীনগর: অশান্ত উপত্যকা থেকে একটু ভালভাবে জীবনযাপনের জন্য ছেলেকে বিদেশে পাঠিয়েছিলেন এক কাশ্মীরি দম্পতি৷ ছেলেও বেশ পড়াশোনা করছিল৷ কিন্তু আচমকাই জেহাদে উদ্বুদ্ধ হয়ে সে নাম লেখাল জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটে৷ ধরা পড়ে এখন সে মার্কিন সেনাবাহিনীর হাতে বন্দি৷ সেখান থেকে ঘরের ছেলেকে ফিরে পেতে প্রশাসনের দ্বারস্থ হলেন মা, বাবা৷

[আরও পড়ুন: আন্দোলনের চাপে মাথা নোয়াল কেন্দ্র, শিক্ষাক্ষেত্রে বাধ্যতামূলক নয় হিন্দি]

ছেলেটির নাম আদিল আহমেদ৷ আদতে শ্রীনগরের জওহরনগরের বাসিন্দা আদিল অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ পাশ করে এক ডাচ মহিলাকে বিয়ে করেন৷ দু’জনই কাজ করতেন একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থায়৷ কিন্তু আচমকাই জীবনযাত্রায় বদল৷ অস্ট্রেলিয়া থেকে স্ত্রী-সহ আদিল তুরস্ক, জর্ডন হয়ে ২০১৩ সালে সিরিয়ায় গিয়ে যোগ দেন আইএসে৷ সেসময় সিরিয়া, ইরাক-সহ মধ্যপ্রাচ্যের একাধিক দেশে দাপট দেখাচ্ছে ইসলামিক স্টেট৷ ভয়ংকর তাণ্ডবলীলায় তটস্থ আমজনতা৷ বেশ সক্রিয়ভাবেই আদিল এবং তার স্ত্রী কাজ করেছিলেন আইএসের হয়ে৷

তারপর কেটে গিয়েছে অনেকগুলি বছর৷ এতদিন ছেলের তেমন খোঁজ পাননি আদিলের মা,বাবা৷ গত বছরের শেষদিকে সিরিয়া এবং ইরাকে আইএসের পতন ঘটে৷ পশ্চিমি দেশগুলির সেনা অভিযানে কার্যত কোমর ভেঙে যায় একসময়কার দাপুটে জঙ্গিগোষ্ঠীর৷ একে একে আইএস জঙ্গিরা ধরা পড়তে থাকে৷ আদিল এবং তার স্ত্রীকেও বন্দি করে মার্কিন সেনাবাহিনী৷ এসবের মাঝে পড়ে নিজেদের ৫ বছরের সন্তানকেও হারিয়েছে আদিলরা৷ সম্প্রতিই ছেলের খবর পান আদিলের বাবা ফয়াজ খান৷

[আরও পড়ুন: অবিশ্বাস্য! এবার অনলাইনে প্রতারণার শিকার খোদ প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি]

সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, তাঁদের ডাচ পুত্রবধূ এসএমএস করে নিজেদের বন্দিদশার কথা জানিয়েছেন৷ তাঁর কথায়, ‘এই খবর পাওয়ার পরই আমি নতুন সরকারের কাছে আবেদন জানাতে চাই যে আমার ছেলেকে ফিরিয়ে আনতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করুন৷’ কাশ্মীর উপত্যকাতেই জঙ্গি কার্যকলাপের শেষ নেই৷ ভারতবিরোধী একাধিক ছোট ছোট গোষ্ঠী সেখানে বিচ্ছিন্নতাবাদের জাল বুনছে৷ সেসবের আঁচ ছেলের গায়ে লাগতে দেবেন না বলেই বিদেশে পাঠিয়ে দিয়েছিলেন ফয়াজ খান ও তাঁর স্ত্রী৷ কিন্তু ছেলের পরিণতি দেখে এখন চোখের জল ফেলা ছাড়া কিছুই করছেন না আদিলের মা৷ ছেলের ছবি আঁকড়ে কেবলই দিন গুনছেন৷ কবে নিজের অপরাধ কবুল করে ঘরে ফিরে স্বাভাবিক জীবনযাপন করবে আদিল৷

দেখুন ভিডিও:

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement