৩ শ্রাবণ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সার্বিক স্বাস্থ্য ব্যবস্থার নিরিখে দেশের সেরা নির্বাচিত হল বামফ্রন্ট শাসিত কেরল। তালিকায় কেরলের পরেই রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশ এবং মহারাষ্ট্র। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির রাজ্য গুজরাট রয়েছে চতুর্থ স্থানে। কংগ্রেস শাসিত পাঞ্জাব রয়েছে পঞ্চম স্থানে। তালিকায় সবার শেষে উত্তরপ্রদেশ। যোগীর রাজ্যের ঠিক উপরেই রয়েছে নীতীশ কুমারের বিহার।

[আরও পড়ুন: ঝাড়খণ্ডের গণপিটুনি ব্যথিত করেছে, বিহারে শিশুমৃত্যুর ব্যর্থতা স্বীকার করলেন মোদি]

রাজ্যের সামগ্রিক স্বাস্থ্য পরিষেবা, ব্যবস্থাপনা, উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার, হাসপাতালের পরিকাঠামোর মতো মোট ২৩টি সূচকের নিরিখে এই সমীক্ষা করেছে নীতি আয়োগ। ২০১৫-১৬ অর্থবর্ষ থেকে শুরু করে ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষের মধ্যে এই সমীক্ষা করা হয়েছে। বিশ্ব ব্যাংকের সঙ্গে মিলিতভাবে এই রিপোর্ট তৈরি করা হয়েছে। হেলদি স্টেটস, প্রগ্রোসিভ ইন্ডিয়া রিপোর্ট কার্ড নামের এই রিপোর্টটি প্রকাশ করা হয়েছে। দেশের সব রাজ্যগুলিকে বড় রাজ্য, ছোট রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল, এই তিনভাগে ভাগ করে চালানো হয়েছে সমীক্ষা।

বড় রাজ্যগুলির মধ্যে সবচেয়ে ভাল স্বাস্থ্য পরিষেবা দেয় কেরল। কেরলের পরই রয়েছে অন্ধ্রপ্রদেশের স্থান। যে সময় এই সমীক্ষাটি হয়েছে সেসময় অন্ধ্রের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন চন্দ্রবাবু নায়ডু। তৃতীয় স্থানে দেবেন্দ্র ফড়ণবিসের মহারাষ্ট্র। চতুর্থ স্থানে গুজরাট। পঞ্চম স্থানে কংগ্রেস শাসিত পাঞ্জাব। বাংলা থেকে ভেলোরে চিকিৎসার জন্য যাওয়ার প্রবণতা রয়েছে। তবে, তামিলনাড়ুর সার্বিক চিকিৎসা ব্যবস্থার অবস্থা কিন্তু মোটেই ততটা ভাল নয়। নীতি আয়োগের রিপোর্টে তামিলনাড়ু রয়েছে নবম স্থানে।

[আরও পড়ুন: ‘দেশ হেরেছে বলা মানে জনাদেশের অপমান’, ইভিএম ইস্যুতে বিরোধীদের তোপ মোদির]

বাংলার অবস্থাও খুব একটা সুখকর নয়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলার স্বাস্থ্য ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তনের দাবি জানালেও, নীতি আয়োগ বলছে ২১টি বড় রাজ্যের মধ্যে বাংলা রয়েছে ১১তম স্থানে। অন্যদিকে, পিছনের দিক থেকে শীর্ষে বিজেপি শাসিত উত্তরপ্রদেশ। গোরক্ষপুর শিশুমৃত্যুর ঘটনা যোগী রাজ্যের চিকিৎসার বাস্তব ছবিরই প্রতিফলন বলে মনে করা হচ্ছে। উত্তরপ্রদেশের ঠিক আগে অর্থাৎ ২০তম স্থানে রয়েছে নীতীশ কুমারের বিহার। যেখানে এনসেফালাইটিসের প্রকোপে প্রায় ২০০ শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং