Advertisement
Advertisement
Mehbooba Mufti

গুপকর রোডের বাংলোর পর সরকারি কোয়ার্টারও ছাড়তে হবে মেহবুবাকে, নয়া বিতর্ক কাশ্মীরে

ভোটের মুখে বিব্রত করার চেষ্টা, সরব পিডিপি।

Mehbooba Mufti served notice to vacate Anantnag govt quarter | Sangbad Pratidin

ফাইল ছবি।

Published by: Subhajit Mandal
  • Posted:November 28, 2022 2:02 pm
  • Updated:November 28, 2022 2:02 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শুধু গুপকর রোডের সরকারি বাংলোই নয়, কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতিকে (Mehbooba Mufti) ছাড়তে হবে সরকারি কোয়ার্টারও। প্রশাসনের নয়া ফরমানে নতুন করে বিতর্ক শুরু হয়ে গেল ভোটমুখী জম্মু ও কাশ্মীরে।

সূত্রের খবর, শনিবার মেহেবুবাকে তাঁর দখলে থাকা একটি সরকারি কোয়ার্টার ফাঁকা করার নোটিস দিয়েছে কাশ্মীর প্রশাসন। কাশ্মীরের অনন্তনাগ জেলার খানাবলের একটি হাউসিং কলোনির ওই কোয়ার্টারটি দীর্ঘদিন ছিল মেহেবুবার দখলে। শনিবার তাঁকে মাত্র ২৪ ঘন্টার মধ্যে সেটি খালি করার নির্দেশ দেওয়া হয়। শুধু তাই নয়, বিরোধী শিবিরের আরও সাতজন প্রাক্তন বিধায়ক এবং এমএলসিকে সরকারি বাড়ি খালি করার নির্দেশ দিয়েছে কাশ্মীর প্রশাসন।

Advertisement

[আরও পড়ুন: গণছাঁটাই আমাজনে, সংস্থার বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ কেন্দ্রীয় সরকারের]

এর আগে মেহেবুবা মুফতিকে তাঁর গুপকর রোডের (Gupkar Road) হাই প্রোফাইল সরকারি বাংলোটিও খালি করার নির্দেশ দিয়েছিল কাশ্মীর প্রশাসন। ২০০৫ সালে বাবা মুফতি মহম্মদ সৈয়দ (Mufti Mohammad Sayeed) মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর থেকেই গুপকর রোডের বিলাসবহুল বাংলোয় থাকতেন মেহেবুবা। তাঁর পরিবারের অন্য সদস্যরাও ওই বাড়িতেই থাকতেন। কিন্তু গত ১৫ অক্টোবর কাশ্মীর প্রশাসন তাঁকে বাড়িটি ছাড়ার নোটিস দেয়। ১৫ নভেম্বরের মধ্যেই তাঁকে গুপকর রোডের বাড়িটি খালি করে বিকল্প একটি বাড়িতে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু যে বিকল্প বাড়িটি প্রশাসন তাঁর জন্য বরাদ্দ করেছিল, সেটি পছন্দ না হওয়ায় গুপকর রোডের বাড়িটি তিনি ফাঁকা করেননি। এমনকী অনন্তনাগের সরকারি কোয়ার্টারটিও তিনি ফাঁকা করবেন না বলেই সূত্রের খবর।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ইমেলে প্রধানমন্ত্রী মোদিকে প্রাণনাশের হুমকি, উত্তরপ্রদেশে গ্রেপ্তার আইআইটির প্রাক্তন ছাত্র]

এভাবে বাড়ি খালি করার নির্দেশের পিছনে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার তত্ত্বই দেখছেন পিডিপি (PDP) নেতারা। তাঁরা বলছেন, ভোটের আগে মুফতি পরিবারকে বিব্রত করতে চাইছে কাশ্মীর প্রশাসন। সব ঠিক থাকলে কয়েক মাসের মধ্যেই কাশ্মীরে ভোট হওয়ার কথা। তার আগে এই নির্দেশ নিঃসন্দেহে উপত্যকায় রাজনৈতিক উত্তাপ বাড়াবে।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ