২৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঝাড়খণ্ডের ঘটনার রেশ এখনও কাটেনি। জয় শ্রীরাম বলানোর নামে উগ্র রামভক্তদের সন্ত্রাসের সেই নিদর্শনকে ভারতের ধর্মনিরপেক্ষতার উপর কালো দাগ হিসেবে চিহ্নিত করছেন অনেকে। খোদ প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, ঝাড়খণ্ডের তাবারেজ হত্যাকাণ্ড তাঁকে ব্যথিত করেছে। এই ধরনের ঘটনা সহ্য করা হবে না বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মোদি। কিন্তু, তাতে কী! কোনওকিছুতেই যেন থামানো যাচ্ছে না রামভক্তদের দাপাদাপি। উত্তরপ্রদেশের কানপুরে ফের ঘটল একই ঘটনা। রাস্তায় ফেজ টুপি পরে যাওয়ার অপরাধে জোর করে জয় শ্রীরাম বলানোর চেষ্টা করা হল এক মুসলিম কিশোরকে। বলতে রাজি না হওয়ায় করা হল বেধড়ক মারধর। 

[আরও পড়ুন: ২০ হাজার কোটি টাকার দুর্নীতি! ফড়ণবিসের বিরুদ্ধে মারাত্মক অভিযোগ]

মূল ঘটনাটি শুক্রবার রাতের। জুম্মাবারের নমাজ শেষে রাতে বাড়ি ফিরছিল কানপুরের বারা এলাকার বাসিন্দা মহম্মদ তাজ। কিদওয়াইনগরের মসজিদ থেকে বাড়ি ফেরার সময় ফেজ টুপি মাথায় ছিল ওই কিশোরের। রাস্তায় কয়েকজন যুবক এক জায়গায় জটলা করে দাঁড়িয়েছিল। রামভক্তদের সেই জটলা পেরিয়ে আসার কিছুক্ষণ পর পিছন থেকে বাইকে করে এসে মহম্মদ তাজকে ঘিরে ধরে জনা কয়েক যুবক। স্থানীয় পুলিশ আধিকারিক সতীশ কুমার সিং বলছেন, ৩-৪ জন অজ্ঞাত পরিচয় যুবক তাজ মহম্মদকে যখন আটকায় তখন সে প্রায় বাড়িতে পৌঁছে গিয়েছিল। মাত্র কয়েকশো মিটার দূরেই ছিল তার বাড়ি। কিন্তু, সেখানেই ঘটে এই ঘৃণ্য ঘটনা।

[আরও পড়ুন: হোয়াটসঅ্যাপে ইতিহাস পড়েছেন অমিত শাহ! বেনজির কটাক্ষ কংগ্রেসের]

প্রথমে দুষ্কৃতীরা তাজকে তাঁর ফেজ টুপি পরা নিয়ে ধমকায়। তারা বলে, এই এলাকায় ফেজ টুপি পরে হাঁটা নিষিদ্ধ। তারপরই খুলে দেওয়া হয় তার ফেজ টুপি। দুষ্কৃতীরা তাজকে জয় শ্রীরাম ধ্বনি দিতে বলে। কিন্তু, ইসলাম ধর্মাবলম্বী তাজ তা বলতে অস্বীকার করে। তারপরই তাঁকে মাটিতে ফেলে পেটানো হয় বলে অভিযোগ। তাজ জানিয়েছে,”আক্রান্ত হওয়ার পর চিৎকার করেছিলেন সাহায্যের জন্য। কিন্তু, কোনও পথচারী তাঁর সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসেনি। পরে কয়েকজন দোকানদার সাহায্যে এগিয়ে আসেন। তাঁদের দেখেই পালিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা।” স্থানীয় পুলিশ আধিকারিকরা জানিয়েছে, ওই কিশোরের মেডিক্যাল পরীক্ষা করানো হয়েছে। দুষ্কৃতীদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং