BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মহারাষ্ট্রে জরুরি বৈঠকের ডাক পওয়ারের, কংগ্রেসের দাবি সরকার ঠিক আছে

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: March 11, 2020 6:48 pm|    Updated: March 11, 2020 6:48 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মধ্যপ্রদেশে রাজনীতির দোলাচল পরিস্থিতিতে বুধবার মহারাষ্ট্রে বৈঠক ডাকলেন এনসিপি প্রধান শরদ পওয়ার। এই বৈঠকের খবর ছড়িয়ে পড়তেই জোর গুঞ্জন রাজনৈতিক মহলে। তাহলে কি আতঙ্কিত হয়েছেন মারাঠা স্ট্রং ম্যান? মধ্যপ্রদেশের পরিস্থিতি দেখেই কি ফের নিজের রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগে শরদ পওয়ার? তাই কি বৈঠকের ডাক দেন তিনি? উঠছে প্রশ্ন।

গত বছর অক্টোবর মাসের পর থেকেই মহারাষ্ট্রে শুরু হয় মহানাটক। বুড়ো হাড়ে ভেল্কি দেখানোর মতোই নভেম্বর মাসে মতাদর্শ বিরোধী শিব সেনাকে নিয়ে (Maha Vikas Aghari) জোট সরকার তৈরি করেছিলেন শরদ পওয়ার। তবে মধ্যপ্রদেশের এই টালমাটাল পরিস্থিতিতে এনসিপি প্রধানের বৈঠক ডাকায় জল্পনা ছড়ায় রাজনৈতিক মহলে। আগামী ২৬ মার্চ রাজ্যসভার ভোট। মহারাষ্ট্র থেকে সাতটি আসন ফাঁকা হচ্ছে। এক বর্ষীয়ান এনসিপি নেতা সংবাদমাধ্যমকে জানান, “আমরা এবার রাজ্যসভার দুটি আসনে প্রার্থী দেব। একটিতে পওয়ার সাহেব অন্যটিতে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ফৌজিয়া খান। আজ, বুধবার দুপুরের পর মহারাষ্ট্র বিধানসভায় মনোনয়ন জমা দেবেন দু’জন।”

তাঁর কথায়, “এই বৈঠক আগেই ডাকা ছিল। এক কংগ্রেস নেতার বক্তব্য, মহারাষ্ট্রের সরকার নিয়ে কোনও ভয় নেই। এনসিপি বিধায়কদের নিয়ে দলের প্রধান বৈঠক ডেকেছেন। এর সঙ্গে মধ্যপ্রদেশের যোগ খোঁজার কোনও মানেই নেই।” পাশাপাশি মধ্যপ্রদেশের প্রসঙ্গ টেনে এনে শিব সেনা সাংসদ সঞ্জয় রাউত দাবি করেন, “বিজেপি মহারাষ্ট্রেও সরকার গঠনের চেষ্টা করে, কিন্তু ব্যর্থ হয়। এখানে মধ্যপ্রদেশের মতো কোনও কারসাজি চলবে না। কেউ কারসাজি করতে এলে আমরা তার উপরেই কারসাজি চালাব।”

[আরও পড়ুন: কংগ্রেসের ৭ সাংসদের সাসপেনশন তুলে নিলেন লোকসভার স্পিকার]

গতকালই অন্তর্বর্তী কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী বৈঠক করেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী তথা প্রবীণ কংগ্রেস নেতা অশোক গেহলটের সঙ্গে। অনেকের মতে, এখন কংগ্রেসের অন্দরে চলছে প্রবীণ ও নবীনের জমি দখলের লড়াই। যার ফলস্বরূপ মধ্যপ্রদেশে চলে কমল নাথ বনাম জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার লড়াই। সেই একই পরিস্থিতি যাতে মরুভূমেও না দেখা যায় তাই আগাম সতর্কতা পালন করতেই তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন দলের সভানেত্রী। যদিও বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা গেহলটের সঙ্গে তরুণ নেতা শচীন পাইলটের একেবারেই বনিবনা নেই তা সকলেরই জানা। তবে গড় সামলাতে না পারলে মরুভূমিতে যে কোনও সময় আসতে পারে গেরুয়া ‘আঁধি’।

[আরও পড়ুন: জল্পনার অবসান, জেপি নাড্ডার হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দিলেন সিন্ধিয়া]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement