২ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২০ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২০ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সংসদে স্বচ্ছতায় অংশ নেওয়াটা যেন কাল হয়েছে হেমা মালিনীর। এমনিতে অভ্যাস না থাকা সত্ত্বেও সাতসকালে ঝাড়ু হাতে ছবি তুলতে হয়েছে। তারপর রয়েছে নেটিজেনদের কটাক্ষ। এবার আসরে নামছেন বিরোধীরাও। জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লা হেমা মালিনীকে পরামর্শ দিলেন, ‘পরের বার ছবি তোলার আগে ঝাড়ু ধরা অভ্যাস করুন।’ নাহয় অভ্যাস নেই বলে ঝাড়ুটা ঠিকঠাক ধরতে পারেননি, তা বলে এত কটাক্ষের শিকার হতে হবে হয়তো ভাবতেও পারেননি বিজেপি সাংসদ।

[আরও পড়ুন: অমরিন্দরের সঙ্গে বিবাদের জের, অবশেষে মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা সিধুর]

হেমা মালিনীর বিতর্কে জড়ানো বা ট্রোল হওয়াটা অবশ্য নতুন কিছু নয়। লোকসভার আগে প্রচারে গিয়ে তাঁরা নানা কীর্তি তাঁকে ইন্টারনেটে রসিকতার পাত্রী করে দিয়েছিল। কখনও কৃষকদের সঙ্গে খেতে ফসল কাটা আবার কখনও ট্রাক্টরে ফ্যান লাগিয়ে জনসংযোগ, সবেতেই মথুরার সাংসদকে নিয়ে রসিকতা করেছেন নেটিজেনরা। এবার হেমা নিজেই নেটিজেনদের হাতে রসিকতার সামগ্রী তুলে দিলেন। অপটু হাতে সংসদের সামনে ঝাড়ু দিতে গিয়েই যত বিপত্তি। হেমা মালিনী এবং অন্য সাংসদদের নিয়ে একের পর এক মিম ছড়িয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

 

[আরও পড়ুন: ফের গণপিটুনিতে প্রাণহানি রাজস্থানে, এবার উন্মত্ত জনতা মারে মৃত পুলিশকর্মী]

পিছিয়ে নেই বিরোধী শিবিরই। ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লা টুইট করে বলেন, “ম্যাডাম দয়া করে পরেরবার ছবি তোলার আগে কীভাবে ঝাড়ু ধরতে হয়। আপনি যেভাবে ঝাড়ু ধরেছেন তা মথুরার পরিচ্ছন্নতায় খুব একটা কাজে লাগবে না। মথুরা কেন কোথাও হবে না।” আবদুল্লার বিজেপি নেতাদের উদ্দেশে প্রশ্ন, “সংসদ চত্বর তো খুব পরিষ্কার জায়গা। বিশেষ করে, যখন অধিবেশন চলে। তাহলে আপনারা কী পরিষ্কার করছেন?”

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং