BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বিরাট রোড শো করে মনোনয়ন জমা দেবেন মোদি, সেজে উঠেছে বারাণসী

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: April 25, 2019 2:02 pm|    Updated: April 25, 2019 2:02 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বৃহস্পতিবার দুদিনের সফরে নিজের লোকসভা কেন্দ্র বারাণসীতে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বিহারের দ্বারভাঙায় সভা করার পর বৃহস্পতিবার দুপুরে বারাণসী পৌঁছে সুবিশাল শোভাযাত্রায় অংশ নেবেন তিনি। বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটের পাশ্ববর্তী লঙ্কা থেকে শুরু হয়ে প্রাচীন মন্দির ও গঙ্গাঘাটগুলোকে পাশে রেখে এই শোভাযাত্রা এগিয়ে যাবে সুবিখ্যাত দশাশ্বমেধ ঘাটের দিকে। সন্ধ্যায় এই ঘাটে হওয়া আরতিতে অংশ নেওয়ার পর শহরের বিশিষ্ট মানুষদের নিয়ে আয়োজিত একটি সভায় বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন- জঙ্গিদমনে বড় সাফল্য সেনার, যৌথ বাহিনীর অভিযানে খতম ২ জেহাদি]

বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, এই শোভাযাত্রায় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে থাকবেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ, অন্যান্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলোর মুখ্যমন্ত্রীরা। শোভাযাত্রার পর সন্ধ্যায় দশাশ্বমেধ ঘাটের আরতিতে অংশ নেবেন তিনি। শুক্রবার সকালে বিজেপি নেতা-কর্মীদের নিয়ে আয়োজিত বৈঠকে অংশ নেওয়ার পর উত্তরপ্রদেশের মন্দির শহর বারাণসীর বিখ্যাত কালভৈরব মন্দির দর্শন করবেন। তারপর সেখান থেকে সোজা জেলা কালেক্টরেট অফিসে গিয়ে মনোনয়নপত্র জমা করবেন নরেন্দ্র মোদি। মনোনয়ন জমার সময় তাঁর সঙ্গে থাকার সম্ভাবনা রয়েছে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার, শিরোমণি অকালি দলের প্রধান প্রকাশ সিং বাদল ও শিব সেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরের। এবারের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির প্রধান মুখ নরেন্দ্র মোদির মনোনয়ন জমাকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যে সাজ সাজ রব বারাণসীতে। সেই উপলক্ষ্যে ছোট ছোট লঞ্চে এলইডি লাইট দিয়ে ‘ম্যায় ভি চৌকিদার‘ লিখে গঙ্গাবক্ষে ছাড়াও হয়েছে।

[আরও পড়ুন-১.৫ কোটির সাদা ঘোড়ায় চেপে প্রচার করছেন দিনমজুর প্রার্থী]

বারাণসীর মূল আকর্ষণ কাশী বিশ্বনাথ মন্দির এলাকায় রাস্তা তৈরি করতে গিয়ে অনেক শতাব্দী প্রাচীন বাড়ি ও মন্দির ভেঙে ফেলা হয়েছে উত্তরপ্রদেশ সরকারের তরফে। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে স্থানীয়দের মধ্যে যথেষ্ট অসন্তোষও ছড়িযেছে। তবু নরেন্দ্র মোদির জনপ্রিয়তা বা ভোটব্যাংকে তার কোনও প্রভাব পড়বে না বলেই মনে করেছে বিজেপির স্থানীয় নেতৃত্ব। যদিও শেষ পর্যন্ত কী হল তা জানতে অপেক্ষা করতে হবে আগামী ২৩ মে পর্যন্ত।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement