২১  আষাঢ়  ১৪২৯  বুধবার ৬ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

নেতাজির নামে আন্দামানের জনপ্রিয় দ্বীপের নামকরণের সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের

Published by: Sayani Sen |    Posted: December 26, 2018 10:15 am|    Updated: December 26, 2018 10:15 am

PM to rename 3 islands of Andaman & Nicobar

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দীর্ঘদিনের দাবি ছিল পোর্ট ব্লেয়ারের নামকরণ করা হোক নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর নামে। কারণ, আন্দামানের সঙ্গে নেতাজির সম্পর্ক সুগভীর। আজাদ হিন্দ বাহিনীর সাহায্যে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জাপানের দখল থেকে আন্দামানকে মুক্ত করে সেখানে ভারতের পতাকা উড়িয়েছিলেন তিনি। আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপ দু’টির নাম নেতাজি রেখেছিলেন ‘শহিদ’ ও ‘স্বরাজ’ দ্বীপ। স্বাধীনতার পর থেকে ফরওয়ার্ড ব্লক পোর্ট ব্লেয়ারের নাম নেতাজির দেওয়া নামে করার দাবি তোলে। এতদিন বাদে নেতাজির নামে আন্দামানে দ্বীপের নামকরণ হচ্ছে। তবে পোর্ট ব্লেয়ার নেতাজির দেওয়া নাম পাচ্ছে না। রস দ্বীপটির নাম নেতাজি করা হচ্ছে। আর নীল ও হ্যাভলক দ্বীপের নাম হবে যথাক্রমে শহিদ দ্বীপ ও স্বরাজ দ্বীপ। আন্দামানের তিনটি দ্বীপের নয়া নামকরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। আগামী ৩০ ডিসেম্বর পোর্ট ব্লেয়ার সফরে যাবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ওই সময়ই প্রধানমন্ত্রী তিনটি দ্বীপের নতুন নাম ঘোষণা করবেন।

[রাস্তা ও পার্কে নিষিদ্ধ নমাজ, উত্তরপ্রদেশ পুলিশের নির্দেশে বিতর্ক]

আন্দামানের তিনটি দ্বীপের নামকরণ নিয়ে রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু হয়েছে। ফরওয়ার্ড ব্লকের সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত বিশ্বাস বলেন, “আমাদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল পোর্ট ব্লেয়ারের নামকরণ করতে হবে নেতাজির দেওয়া নামে। ৩০ তারিখ তো প্রধানমন্ত্রী যাচ্ছেন। সরকারি বিজ্ঞপ্তি আগে দেখি, সেই অনুযায়ী পরবর্তী কর্মসূচি নেওয়া হবে।” একই সঙ্গে তিনি উল্লেখ করেন, “সামনেই তো ভোট। তাই এ ধরনের পদক্ষেপ।”

[গেরুয়া রথ রুখতে যোগীর রাজ্যে হাত মেলাতে পারে সপা-বসপা]

২০১৭ সালের মার্চ মাসে বিজেপির পক্ষ থেকে রাজ্যসভায় হ্যাভলক দ্বীপের নাম বদল করার দাবি তোলা হয়েছিল। ব্রিটিশ জেনারেল হ্যাভলকের নামে ওই দ্বীপের নামকরণ হয়েছিল স্বাধীনতার আগে। ব্রিটিশ জেনারেলের নামে কেন এখনও ভারতের কোনও জনপদের নাম থাকবে, সেই প্রশ্ন রাজ্যসভায় তুলেছিল বিজেপি। সেই কারণে হ্যাভলক দ্বীপের নাম বদল হচ্ছে। তার সঙ্গে নেতাজির আবেগকে মাথায় রেখে রস ও নীল দ্বীপের নাম বদল। কিন্তু পোর্ট ব্লেয়ারের নাম বদল না হওয়ায় রাজনৈতিক তরজা থাকবে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে