৮ ফাল্গুন  ১৪২৬  শুক্রবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গোলাপ ফুল, ভ্যালেন্টাইনস ডে গ্রিটিংস কার্ড-টেডি বিয়ার এবং সঙ্গে রোম্যান্টিক মিউজিক। থার্মোকলের হার্ট তৈরি করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আহ্বান। প্রেম দিবসে এ যেন রোমান্টিক কোনও ‘ডেট’-এর পরিবেশ। কে বলবে এখানে গত ৬৮দিন ধরে এই মোদির বিরুদ্ধেই বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন স্থানীয়রা! ভ্যালেন্টাইনস ডে’তে এ একেবারে অন্য ধাঁচের প্রতিবাদ শাহিনবাগে (Shaheen Bagh)। পুরোপুরি প্রেমময়। আসলে বিক্ষোভকারীরা বোঝাতে চাইছেন, হিংসার পথে নয়, ভালবাসার পথেই CAA’র প্রতিবাদ করতে চান তাঁরা। আর আপাতত তাঁদের লক্ষ্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে আলোচনা করা।

[আরও পড়ুন: ‘গোলি মারো’র মতো মন্তব্য করা ঠিক হয়নি, দিল্লির অন্তর্তদন্তে ‘আক্ষেপ’ অমিত শাহর]

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পাশ হওয়ার পর থেকেই দিল্লির শাহিনবাগে বিক্ষোভে বসেছেন এলাকার মহিলারা। প্রথমে বিক্ষোভ আকারে ছোট হলেও, ধীরে ধীরে তা বেড়েছে পরিসরে। হাজার হাজার মানুষ যোগ দিয়েছেন বিক্ষোভে। দিল্লির আস্ত একটা বিধানসভা নির্বাচন হয়েছে শাহিনবাগ ইস্যুকে সামনে রেখে। নির্বাচনে হার হয়েছে বিজেপির। কিন্তু এখানেই আত্মতুষ্ট নয় শাহিনবাগ। বিক্ষোভ তাঁরা চালিয়ে যেতে চান। আপাতত তাঁদের লক্ষ্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi) অথবা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহর (Amit Shah) সঙ্গে আলোচনায় বসা। প্রেম দিবসে তাই শাহিনবাগবাসীর প্রেমময় আবেদন প্রধানমন্ত্রীকে। “আমাদের কাছে আসুন। কথা বলুন।আপনার জন্য একটা ‘সারপ্রাইজ গিফ’ট আছে। সেটা গ্রহণ করুন।” মোদিকে আমন্ত্রণ জানাতে, একদিকে যেমন বিক্ষোভস্থল সুন্দর করে সাজিয়ে তোলা হয়েছে, অন্যদিকে তেমনি বাঁধা হয়েছে প্রেমের গান।তবে, সারপ্রাইজ গিফটি কী? তা খোলসা করে বলেনি শাহিনবাগবাসী।

 

[আরও পড়ুন: আসছেন ট্রাম্প, গরিবি লুকোতে বসতির পাশে দেওয়াল উঠছে মোদির রাজ্যে!]

কিন্তু, এতকিছুর পরও কি প্রধানমন্ত্রী তাঁদের ডাকে সাড়া দেবেন? স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহর সুর এখন অনেকটাই নরম। এতদিন ধরে যে অমিত শাহ শাহিনবাগ নিয়ে তেড়েফুঁড়ে আক্রমণ শানাচ্ছিলেন গতকাল এক অনুষ্ঠানে গিয়ে তিনিই জানিয়েছেন, দেশের প্রত্যেক নাগরিকের নিজেদের মতো করে বিক্ষোভ দেখানোর অধিকার আছে। শুধু তাই নয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, সুষ্ঠুভাবে আলোচনার প্রস্তাব এলে শাহিনবাগকে সময় দিতে রাজি আছে সরকার। এখন দেখার, মোদি বা অমিত শাহ কেউ সত্যিই শাহিনবাগের ডাকে সাড়া দিয়ে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে কথা বলেন কিনা!

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং