BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ছেলেকে নিয়ে দিল্লিতে মুকুল, তুঙ্গে শুভ্রাংশুর বিজেপিতে যোগদানের জল্পনা

Published by: Tanujit Das |    Posted: May 27, 2019 9:01 pm|    Updated: May 27, 2019 9:01 pm

An Images

সোম রায়, নয়াদিল্লি: অনেকদিন ধরে যে গুঞ্জন ছিল রাজনৈতিক মহলে, মঙ্গলবারই কি তা সত্যি হতে চলেছে? ওইদিনই কি আনুষ্ঠানিক ভাবে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিতে চলেছেন মুকুলপুত্র শুভ্রাংশু রায়? একসঙ্গে বাবা-ছেলের দিল্লি যাত্রা নিয়ে অন্তত সেই জল্পনাই তীব্র হচ্ছে রাজধানী থেকে শুরু করে রাজ্য রাজনীতির অন্দরে৷

[ আরও পড়ুন: ভোটের স্বার্থে সমালোচনা! মৃত্যুবার্ষিকীতে নেহরুকে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন মোদির ]

সূত্রের খবর, সোমবার দুপুরে একসঙ্গে দিল্লির উদ্দেশ্যে বিমানে চাপেন বিজেপি নেতা মুকুল রায় ও বীজপুরের তৃণমূল বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়৷ কিন্তু সংবাদমাধ্যমের নজর এড়াতে আলাদা আলাদা বিমানবন্দর থেকে বেরোন তাঁরা৷ মুকুল বেরোন ভিআইপি গেট দিয়ে এবং শুভ্রাংশু সাধারণ গেট দিয়ে৷ এবং দু’জনেই সংবদামাধ্যমকে এড়িয়ে যেতে চান৷ শুভ্রাংশুর বিজেপিতে যোগদানের বিষয়টিতে কোনও উত্তর দেননি  মুকুল রায়৷ অন্যদিকে ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করেন শুভ্রাংশু৷ জানান, ‘যা বলার কালকে বলব৷’ আর মুকুলপুত্রের এই মন্তব্যই আরও উত্তেজনার পারদ চড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে৷ সূত্রের খবর, মঙ্গলবার দিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তরে পাকাপাকিভাবে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে পারেন সদ্য তৃণমূল থেকে সাসপেন্ড হওয়া মুকুলপুত্র৷ তাঁর সঙ্গে যোগদান করতে পারে বারাকপুর-সহ আশপাশের পুরসভার বেশ কয়েকজন কাউন্সিলর৷ শাসকদল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার প্রথম দিন থেকেই মুকুল রায় দাবি করে এসেছেন, তৃণমূলকে ভাঙবেন তিনি৷ চ্যালেঞ্জের সুরে বলেছেন, ২০২১-এর আগে রাজ্যের সরকার পড়ে যাবে৷ সদ্য লোকসভা ভোটের ফলাফল দেখে, রাজনৈতিক বিশ্লেষকরাও সেই আশঙ্কা করতে শুরু করেছেন৷ এই পরিস্থিতিতে জানা গিয়েছে, কেবল শুভ্রাংশুই নন, মঙ্গলবার বা এর পরবর্তী সময়ে পদ্ম শিবিরে নাম লেখাতে চলেছেন মুকুল ঘনিষ্ঠ তৃণমূলের আরও একাধিক বিধায়ক৷ যদিও এই বিষয়ে সোমবার কোনও মন্তব্যই করতে চাননি মুকুল কিংবা শুভ্রাংশু কেউই৷

[আরও পড়ুন: হাজারেরও বেশি মানুষকে খাবার খাইয়ে বিশ্বরেকর্ড, নেটদুনিয়ায় প্রশংসিত যুবক ]

কখনও ফেসবুকে বা কখনও প্রকাশ্য জনসভায় দলের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে দেখা গিয়েছে শুভ্রাংশুকে৷ লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পরেই সাংবাদিক সম্মেলন করে শাসকদলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন তিনি৷ বাবা মুকুল রায়ের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করে বলেন, ‘একটা মুকুল রায় গোটা তৃণমূলকে তছনছ করে দিল৷ কাঁচরাপাড়ার ওই কাঁচা ছেলেটাই চাণক্যর বুদ্ধিতে গোটা বাংলাকে চষে বেড়াল৷’ অভিযোগ করেন, তৃণমূলের নেতারা তাঁকে বিশ্বাস করেন না৷ ‘গদ্দারের ছেলে’ বলে তাঁর সমালোচনা করেছেন খোদ তৃণমূল নেত্রী৷ যা আঘাত দিয়েছে তাঁকে৷ এরপরই দলবিরোধী কাজের অভিযোগে সদ্যই বীজপুরের বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়কে ছ’বছরের জন্য নির্বাসিত করে তৃণমূল কংগ্রেস৷ তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় অভিযোগ করেন, দীর্ঘদিন ধরে শুভ্রাংশু যা কাজ করছেন, বা যা মন্তব্য করছেন তা দলের অস্বস্তি বাড়িয়েছে৷ দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে৷ সেকারণেই তাঁকে নির্বাসিত করা হয়েছে৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement