BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দেশের মধ্যে প্রথমবার স্তন্যদানের ঘর পেতে চলেছে তিনটি প্রত্নতাত্ত্বিক সৌধ

Published by: Bishakha Pal |    Posted: May 21, 2019 8:32 pm|    Updated: August 24, 2019 4:06 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: স্তন্যদান যেন এখন একটা সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। গত বছর নভেম্বর মাসে সাউথ সিটি মলে শিশুকে স্তন্যপান করাতে গিয়ে অপমানিত হন এক মহিলা। যদিও পরে এনিয়ে ক্ষমা চেয়ে নেয় মল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু এই ঘটনা থেকে শিক্ষা নেয়নি নেয়নি সমাজ। কিছুদিন পর তেমন আরও একটা প্রমাণ পাওয়া গেল। বেঙ্গালুরুগামী বিমানে আর এক মহিলাকে একই ঘটনার সম্মুখীন হতে হয়। এরপর শপিং মলগুলিতে স্তন্যদান বাধ্যতামূলক করা হয়। কিন্তু পাবলিক প্লেসগুলিতে স্তন্যদান করতে এখনও অস্বস্তি হয় মহিলাদের। তবে তাদের খানিকটা সুবিধা করে দিল আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া।

দেশের তিনটি ঐতিহাসিক স্থানে স্তন্যদানের জন্য নির্দিষ্ট ঘর রাখার নির্দেশ দিল প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগ। ভারতের মতো দেশে এটি একটি বড় পদক্ষেপ বলাই যায়। এই প্রথম ভারতে স্তন্যদানের জন্য ঘর রাখার কথা চিন্তাভাবনা করা হল। আর্কিওলজিক্যাল সার্ভের তরফে জানানো হয়েছে, এই ঐতিহাসিক জায়গাগুলির মধ্যে রয়েছে তাজমহল, আগ্রা কেল্লা ও ফতেপুর সিক্রি। দেশের মধ্যে এই প্রথম কোনও ঐতিহাসিক জায়গায় ‘ব্রেস্ট ফিডিং রুম’ খুলতে চলেছে। একটি সংবাদমাধ্যমকে প্রত্নতাত্ত্বিক বসন্ত সাওয়রনকর জানিয়েছেন, কোনও সৌধে এই প্রথম এই সুবিধা চালু হল। মায়েদের স্তন্যদানে সমস্যার কথা ভেবেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

[ আরও পড়ুন: রাতারাতি বদলে যাচ্ছে ইভিএম! ভিডিও প্রকাশ করে বিস্ফোরক অভিযোগ বিরোধীদের ]

রিপোর্ট অনুযায়ী এখন দেশে মোট ৩ হাজার ৮৮৬টি সৌধ প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগের তত্ত্বাবধানে রয়েছে। জানা গিয়েছে, যেসব জায়গায় স্তন্যদানের জন্য নির্দিষ্ট ঘর রাখার কথা ভাবা হচ্ছে, তার কাজ ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। আগামী দু’মাসের মধ্যেই সব কাজ শেষ হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। ওই সৌধগুলির পরিকাঠামো খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ওই নির্দিষ্ট ঘরে আলো, পাখা, চেয়ার, টেবিল এসব থাকা বাধ্যতামূলক। সেসবের প্রস্তুতি নেওয়া চলছে।

[ আরও পড়ুন: অরুণাচলে নাগা বিদ্রোহীদের হামলায় প্রাণ হারালেন বিধায়ক-সহ ১১ জন ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement