BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জরিমানা আদায়ে মরিয়া, অর্ডিন্যান্সের পর এবার ট্রাইব্যুনাল গঠনের পথে যোগী সরকার

Published by: Paramita Paul |    Posted: March 15, 2020 2:44 pm|    Updated: March 15, 2020 2:44 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কোনওমতেই দমতে রাজি নয় যোগী প্রশাসন। যেনতেন প্রকারেণ CAA বিরোধী আন্দোলনকারীদের কাছ জরিমানা আদায় করতে মরিয়া উত্তরপ্রদেশে প্রশাসন। সেই উদ্দেশ্যে এবার ট্রাইব্যুনাল তৈরির পথে হাঁটছে তাঁরা। রবিবার এমনটাই জানাল উত্তরপ্রদেশেরের সরকারি আধিকারিকরা। সেই ট্রাইব্যুনালের মাথায় থাকবেন জেলা আদালতের অবসরপ্রাপ্ত এক বিচারক। এমনকী ক্ষতিপূরণ সংক্রান্ত ট্রাইব্যুনালের সিদ্ধান্তকে কোনও আদালতে চ্যালেঞ্জ করা যাবে বলেও জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত বছরের শেষের দিক থেকে CAA বিরোধী আন্দোলনে উত্তাল হয়েছে গোটা দেশ। বাদ পড়েনি উত্তরপ্রদেশেও। সেই আন্দোলন প্রচুর সরকারি সম্পত্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপরই উত্তরপ্রদেশের যোগী সরকার সিদ্ধান্ত নেয়, আন্দোলনকারীদের কাছ থেকে জরিমানা আদায় করা হবে। সেই জরিমানা আদায়ের জন্য রীতিমতো অর্ডিন্যান্স পাশ করেছে সরকার। তাদের সেই সিদ্ধান্ত নিয়ে ব্যাপক বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

[আরও পড়ুন : করোনায় মৃত্যুতে দেওয়া হবে না আর্থিক অনুদান! কেন্দ্রীয় বিজ্ঞপ্তি ঘিরে বিভ্রান্তি তুঙ্গে]

 CAA বিরোধী আন্দোলনে অংশ নেওয়ার জন্য ৫৩ জন বিক্ষোভকারীর নাম, ছবি ও ঠিকানা-সহ হোডিংকে আইনি রূপ দিতে অর্ডিন্যান্স পাশ করাল যোগী প্রশাসন। গত শুক্রবার আগে প্রকাশ্যে ওই হোডিংগুলি লাগানোর জন্য উত্তরপ্রদেশ সরকারকে তীব্র ভর্ৎসনা করে এলাহাবাদ হাই কোর্ট। অত্যন্ত অন্যায় হয়েছে বলে উল্লেখ করে অবিলম্বে ওই হোডিংগুলি সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেয়। এই রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয় যোগী সরকার। কিন্তু, সেখান থেকেই হতাশ হয়ে ফিরতে হয় তাদের। কোনও আইন উত্তরপ্রদেশ প্রশাসনের এই কাজকে সমর্থন করবে না বলে জানিয়ে দেয় দেশের সর্বোচ্চ আদালত। এরপর শুক্রবার নিজেদের কাজকে আইনি রূপ দিতে ‘ইউপি রিকভারি ফর ড্যামেজ টু পাবলিক অ্যান্ড প্রাইভেট প্রপার্টি অর্ডিন্যান্স, ২০২০’ পাশ করাল যোগী আদিত্যনাথের মন্ত্রিসভা। খুব তাড়াতাড়ি বিলটি বিধানসভা আনা হবে বলেও জানা গিয়েছে। এরপরই ট্রাইব্যুনাল গঠনের কথা জানানো হল।

[আরও পড়ুন : কাশ্মীরে বানচাল নাশকতার ছক, নিরাপত্তা রক্ষীদের গুলিতে খতম ৪ জঙ্গি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement