BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘বিজেপি যাত্রার চরিত্রের মতো দু’মুখো’, শ্লেষের সুর প্রাক্তন শরিক উপেন্দ্র কুশওয়ার

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: April 25, 2019 8:11 pm|    Updated: April 25, 2019 8:11 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাম যাত্রার সীতার মতো বিজেপিও দু’মুখো। বৃহস্পতিবার বিহারের দ্বারভাঙায় জনসভা করতে গিয়ে এই মন্তব্যই করলেন রাষ্ট্রীয় লোক সমতা পার্টির প্রধান উপেন্দ্র কুশওয়া৷ 

এনডিএ-র প্রাক্তন শরিক কুশওয়া বলেন, “রাম যাত্রায় যিনি সীতা চরিত্রে অভিনয় করেন, তিনি মঞ্চে এলে সবাই সম্মান ও শ্রদ্ধা জানায়। কিন্তু, অভিনয় শেষ হওয়ার পর স্টেজের পিছনে গিয়ে উঁকি মারলে দেখা যেত, সীতা সিগারেট টানছেন। বিজেপিও এই ধরনের দু’মুখো চরিত্রের। ভিতরে সবাই দুর্নীতিগ্রস্ত হলেও বাইরের দিকে ভগবান সেজে রয়েছে। সাধারণ মানুষ বিজেপির বাইরের রূপ দেখে মোহিত হলেও আমি এনডিএ-তে থাকার সময় তাদের আসল রূপ দেখতে পেয়েছি।”

[আরও পড়ুন- রঞ্জন গগৈয়ের বিরুদ্ধে ‘ষড়যন্ত্র’, তদন্তে সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি]

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের সময় এনডিএ জোটে ছিল প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী উপেন্দ্র কুশওয়ার আরএলএসপি। কিন্তু, গতবছর ডিসেম্বর মাসে তিনি জোট ছাড়েন। বিহারে বিজেপির সঙ্গে নীতীশ কুমারের জেডি(ইউ)-এর জোট তৈরি ও লোকসভার আসন বন্টনের ঘটনা থেকেই সূত্রপাত হয় সমস্যার। বিজেপি নীতীশ কুমারকে খুশি করতে গিয়ে এনডিএ-এর পুরনো বন্ধুর সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে বলেও অভিযোগ করেন উপেন্দ্র। তারপর জোটও ছেড়ে দেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখে জানান, আপনার নেতৃত্বে আমার সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন- জল্পনার অবসান, বারাণসীতে মোদির বিরুদ্ধে প্রার্থী ঘোষণা কংগ্রেসের]

মন্ত্রিত্ব থেকে পদত্যাগের চিঠিতে তিনি আরও অভিযোগ করেন, “সংবিধানকে অস্বীকার করে নির্বাচিত সাংসদদের নিয়ে তৈরি মন্ত্রিসভাকে নিষ্ক্রিয় করে দিয়েছিলেন আপনি। আপনার জন্যই রাবার স্ট্যাম্পে পরিণত হয়েছিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। কোনও রকম প্রশ্ন ছাড়া আপনার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত করাই ছিল অন্য মন্ত্রীদের কাজ। মন্ত্রী থেকে আমলা, কে কোন দায়িত্ব পাবে তা ঠিক হত আপনি, আপনার দপ্তর ও বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতির অঙ্গুলি হেলনে।”

এবারের লোকসভা নির্বাচনে বিহারে লালুপ্রসাদ যাদবের আরজেডি ও কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করেছে রাষ্ট্রীয় লোক সমতা পার্টি। পাঁচটি আসনে প্রার্থীও দিয়েছে। ফলে এবার বিহারের রাজনীতিতে অন্য সমীকরণ৷ তা ভোটের ময়দানে কী প্রভাব ফেলে, সেদিকে অবশ্যই নজর থাকবে সকলের৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement