৭ ভাদ্র  ১৪২৬  রবিবার ২৫ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাড়িতে চড়াও হওয়া সশস্ত্র দুষ্কৃতীদের চটি ও চেয়ার দিয়ে মেরে ভাগিয়ে দিলেন এক বৃদ্ধ দম্পতি। ঘটনার সময়ের সিসিটিভি ফুটেজ সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট হতেই ভাইরাল হয়েছে। ওই বৃদ্ধ ও বৃদ্ধার অসম সাহসের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে উঠেছেন সবাই। রবিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে তামিলনাড়ুর কল্যাণীপুরম এলাকায়।

[আরও পড়ুন: ৩১ আগস্ট প্রকাশ করতে হবে বাতিল নামের তালিকা, এনআরসি নিয়ে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের]

ভাইরাল হওয়া সিসিটিভি ফুটেজে গিয়েছে, ঘরের সামনে থাকা বারান্দার একটি চেয়ারে বসে আছেন ৭০ বছরের বৃদ্ধ শানমুগাভেল। এরপর দেখা যায় সামনে থাকা টেবিল থেকে একটি কাগজ তুলছেন তিনি। আচমকা পিছনে থেকে গলায় গামছা দিয়ে টেনে ধরে মুখে কাপড় বাঁধা এক দুষ্কৃতী। ঘটনার আকস্মিকতায় প্রথমে চমকে যান ওই বৃদ্ধ। কিন্তু, তারপর নিজেকে বাঁচানোর চেষ্টা করার পাশাপাশি চেঁচামেচি করতে থাকেন। ঘরের মধ্যে তখন সংসারের কাজে ব্যস্ত ছিলেন ওই বৃদ্ধের স্ত্রী ষাটোর্ধ্ব সেন্থামারাই। কিন্তু, ঘরের বাইরে থেকে স্বামীর গলার আওয়াজ পেয়ে একছুটে বেরিয়ে আসেন। পুরো ঘটনাটি দেখে একমুহূর্ত দেরি করেননি তিনি। ঘরের দরজার বাইরে রাখা চটি ও জুতো কুড়িয়ে দুষ্কৃতীটিকে লক্ষ্য করে ছুঁড়তে থাকেন। এমন সময় আড়াল থেকে বেরিয়ে আসে আরেক দুষ্কৃতী। এর মুখেও বাঁধা ছিল কাপড়। দু’জনে মিলে হাতে থাকা কাস্তে নিয়ে ওই বৃদ্ধার উপর চড়াও হওয়ার চেষ্টা করেন।

কিন্তু, স্বামীকে আক্রান্ত হতে দেখে তখন রুদ্রমূর্তি ধারণ করেছেন ওই মহিলা। দুই দুষ্কৃতীকে লক্ষ্য করে দুহাতে ছুঁড়তে শুরু করেছেন চটি ও জুতো। সামনে থাকা একটি চেয়ার তুলে দুই দুষ্কৃতীকে মারার চেষ্টাও করছেন। এই সুযোগে নিজের গলা থেকে গামছা সরিয়ে তাঁর সঙ্গে যোগ দেন স্বামী শানমুগাভেলও। এরপর দু’জনে চেয়ার তুলে মারতে থাকেন ওই ২ দুষ্কৃতীকে। এভাবে মারধরের জেরে ভয় পেয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। এভাবে যে ওই বৃদ্ধ দম্পতি প্রতিরোধ গড়ে তুলবে তা ভাবতে পারেনি তারা। তাই কিছুটা পিছিয়ে যায় এক দুষ্কৃতী। তবে অন্যজন তখনও হুমকি দিচ্ছিল। কিন্তু, দুষ্কৃতীরা ভয় পেয়েছে বুঝতে পেরে তেড়ে যান শানমুগাভেল। আর তাঁর এই মারমুখী মূর্তি দেখেই রণে ভঙ্গ দেয় দুষ্কৃতীরা।

[আরও পড়ুন: আগুনের গ্রাসে দিল্লির গান্ধীনগর মার্কেট, ঘটনাস্থলে দমকলের ২১টি ইঞ্জিন]

এই ঘটনার পরে স্থানীয় থানায় গিয়ে একটি এফআইআর দায়ের করেছেন শানমুগাভেল ও তাঁর স্ত্রী সেন্থামারাই। তাঁদের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তও শুরু করেছে পুলিশ। কিন্তু, এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। ঘটনাস্থলে থাকা সিসিটিভি ফুটেজ দেখে দুষ্কৃতীদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে বলেই জানিয়েছে তারা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং