৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গোটা দেশে হবে এনআরসি৷ বুধবার রাজ্যসভায় দাঁড়িয়ে দ্ব্যর্থহীন কণ্ঠে এমনই জানালেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ৷ সাফ বললেন, অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করা হবে৷ এবং এদের প্রত্যেককে দেশ থেকে বিতারিত করা হবে৷ তাদের দেশ থেকে তাড়ানো হবেই৷ অনুপ্রবেশ রুখতে আরও কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করবে সরকার৷ সীমান্তে নজরদারি আরও আঁটসাঁট করা হবে৷

[ আরও পড়ুন: তীর্থে গিয়ে বিবাদ, মন্দিরে পুজো দিয়েই খাদে মরণধাক্কা স্ত্রীকে]

বুধবার রাজ্যসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এই বক্তব্যের ঠিক একদিন আগেই, অর্থাৎ বৃহস্পতিবার এই অনুপ্রবেশ ইস্যুতে লোকসভায় লিখিত বিবরণ দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক৷ বিজেপি সাংসদ প্রবেশ সহিব সিংয়ের প্রশ্নের উত্তরে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে যে, অনুপ্রবেশ রুখতে গত পাঁচ বছরে উল্লেখযোগ্য কাজ করেছে কেন্দ্র৷ সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়াজাল আরও পোক্ত করা হয়েছে৷ স্পর্শকাতর এলাকাগুলিতে যথাযথ আলোর ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ তৈরি হয়েছে পাকা রাস্তা৷ সীমান্তের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সেনাকর্মীরা অতিস্পর্শকাতর ওই এলাকাগুলিতে নিয়মিত পেট্রলিং চালান৷ সীমান্তজুড়ে তৈরি হয়েছে অতিরিক্ত বর্ডার আউটপোস্ট৷

যদিও এর পাশাপাশি কেন্দ্র স্বীকার করেছে যে, এখনও পুরোপুরি ভাবে অনুপ্রবেশ বন্ধ করা যায়নি৷ লিখিত ওই বিবরণে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক বলেছে যে, নিরাপত্তার ঘেরাটোপ এড়িয়ে পার্বত্য অঞ্চল ও নদীপথের সাহায্য নিয়ে, এখনও কিছু অংশে অনুপ্রবেশ চলছে৷ যদিও আগামিদিনে সেই রাস্তাও বন্ধ হবে বলে আশ্বাস দিয়েছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রক৷ জানানো হয়েছে যে, অনুপ্রবেশকারীদের রুখতে ১৯৪৬-এর ফরেনার্স অ্যাক্টের সেকশন ৩ ধারাকে আরও পোক্ত করা হয়েছে৷

[ আরও পড়ুন: কর্ণাটক আস্থা ভোটে যোগ দিতে বাধ্য নয় বিধায়করা, রায় শীর্ষ আদালতের ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং