২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২২ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

পাথর ছুঁড়ে, কাঁটাতার পেঁচানো লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মারা হয় ভারতীয় জওয়ানদের

Published by: Paramita Paul |    Posted: June 17, 2020 10:25 am|    Updated: June 17, 2020 10:30 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গুলি-বন্দুক বা অত্যাধুনিক অস্ত্র শুধু নয়। পাথর ছুঁড়ে, কাঁটাতার পেঁচানো লোহার রড দিয়ে মারধর করা হয়েছে ভারতীয় সেনা জওয়ানদের। লাদাখে ভারত (India)-চিনের (China) রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ সংক্রান্ত এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসছে।

৪৫ বছর পর সীমান্তে চিনা সেনার আক্রমণ। প্রাণ গেল ২০ জওয়ানের। আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে আরও ৪ জন। কিন্তু আচমকা কেন এই হামলা? কীভাবেই বা গণ্ডগোলের সূত্রপাত? মঙ্গলবার দিনভর এনিয়ে নানা মহলে জল্পনা চলছে। ভারতীয় সেনার তরফে জানানো হয়েছে, সোমবার রাতে প্ররোচনা ছাড়াই হামলা হয়েছে। পাথর ছুঁড়ে হত্যা করা হয়েছে এক অফিসারকে। সেনা সূত্রে খবর, শুধু খণ্ডযুদ্ধে নয়, প্রবল ঠাণ্ডায়ও বেশ কয়েকজন জওয়ান প্রাণ হারিয়েছেন। অসমর্থিত সূত্রের দাবি, চিনা সেনার অতর্কিত হামলা থেকে বাঁচতে অনেকেই গলওয়ান নদীতে ঝাঁপ দিয়েছিল। প্রবল ঠাণ্ডা জলে অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাঁদের মৃত্যু হয়।”

[আরও পড়ুন : ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যুর সর্বকালীন রেকর্ড! করোনার বলি ২০০৩ জন]

কে আগে হামলা চালিয়েছে, এ নিয়ে দুপক্ষের মধ্যেই চাপানউতোর রয়েছে। চিনের পিপলস লিবারেশন আর্মি (PLA) গোটা ঘটনার দায় ১৬ নম্বর বিহার রেজিমেন্টের উপর চাপিয়েছে। জানা গিয়েছে, পূর্ব নির্ধারিত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পূর্ব লাদাখের বিভিন্ন অংশ থেকে সেনা সরাচ্ছিল দুই পক্ষই। চিন কোনও অজ্ঞাত কারণে গলওয়ান থেকে সেনা সরাতে চায়নি। এ নিয়ে এক ভারতীয় সেনা আধিকারিক চিনা সেনার সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে তাঁর নেতৃত্বেই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় (LAC) ভারতীয় ভূখণ্ডে  ১৪ নম্বর পেট্রোলিং পয়েন্টে চিনের তাবু ও নজরদারি পোস্ট ভেঙে দেওয়া হয়। এর চিনা সেনা আচমকা হামলা চালায়। অভিযোগ, ভারতীয় জওয়ানদের লক্ষ্য করে বড় পাথর ছুঁড়তে থাকে। সম্পূর্ণ নিরস্ত্র অবস্থাতেই প্রাণ দিতে হয় বহু ভারতীয় সেনাকে।

[আরও পড়ুন :৪৫ বছর আগে শেষবার গুলি চলে চিন সীমান্তে, জানুন কী হয়েছিল সেদিন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement