২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

কেকেআর: ১৫৯-৮ (লিন ৫১, নারিন ২৫)

সানরাইজার্স: ১৬১-১ (বেয়ারস্টো ৮০, ওয়ার্নার ৬৭)

সানরাইজার্স ৯ উইকেটে জয়ী।

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হারের খড়্গ যেন কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না কেকেআরের। অ্যাওয়ে ম্যাচে সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে ফের হারতে হল। এই মরশুমে এটা নিয়ে ৬টা ম্যাচ হারল নাইটরা। শেষ পাঁচটি ম্যাচেই হারের মুখ দেখতে হল কেকেআর শিবিরকে। সানরাইজার্স নাইটদের হারাল ৯ উইকেটে।

[আরও পড়ুন: আইপিএলে ৫০০ কোটি টাকার বেটিং চক্রের পর্দাফাঁস, চাঞ্চল্য ক্রিকেট মহলে]

হায়দরাবাদের রাজীব গান্ধী স্টেডিয়ামে এদিন টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন সানরাইজার্স অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। লাগাতার হারের জেরে এদিন দলে তিনটি পরিবর্তন করা হয়। বাদ পড়েন রবীন উথাপ্পা, কুলদীপ যাদব এবং প্রসিদ্ধ কৃষ্ণা। সুযোগ পান রিঙ্কু সিং, কে সি ক্যারিয়াপা এবং তরুণ পেসার পৃথ্বীরাজ। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালই করেন দুই ওপেনার। মাত্র ৩ ওভারেই ৪০ রানের গণ্ডি পেরিয়ে যায় কেকেআর। কিন্তু আবারও মিডল অর্ডারের ব্যর্থতা ডোবাল নাইট শিবিরকে। সুনীল নারিন আউট হওয়ার পরই কমতে থাকে রান তোলার গতি। ব্যর্থ হন শুভমান গিল। এদিন ফের ব্যর্থ অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক। যদিও, তাঁকে ফিরতে হয় রান আউট হয়ে। ফর্মে থাকা দুই ব্যাটসম্যান নীতীশ রানা এবং আন্দ্রে রাসেলও এদিন প্রত্যাশামতো খেলতে পারেননি। একমাত্র ক্রিস লিন কিছুটা লড়াই দেন। যদিও, তাঁর রান তোলার গতিও ছিল প্রত্যাশার তুলনায় অনেকটা কম। লিন এদিন ৪৭ বলে ৫১ রান করেন। নারিন করেন ৮ বলে ২৫। নির্ধারিত ২০ ওভারে কেকেআর সংগ্রহ করে ৮ উইকেটে ১৫৯ রান।

[আরও পড়ুন: ধাওয়ানকে মানকড়িংয়ের চেষ্টা! অশ্বিনকে মোক্ষম জবাব ‘গব্বরের’]

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই চালিয়ে খেলতে থাকেন সানরাইজার্সের দুই ওপেনার। দু’জনেই দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন। এদিনও তাদের সেই ফর্মের প্রতিফলন দেখা গেল খেলার মাঠে। সুনীল নারিন, পীযূষ চাওলা, হ্যারি গার্নিরা তাদের বেগও দিতে পারেননি। সানরাইজার্সের প্রথম উইকেটটি পড়ে ১৩১ রানে। ওয়ার্নার আউট হন ৬৭ রান করে। ততক্ষণে অবশ্য ম্যাচ পকেটে পুরে ফেলেছে হায়দরাবাদের দলটি। যেটুকু কাজ বাকি ছিল তা শেষ করেন বেয়ারস্টো। তাঁর সংগ্রহ ৮০ রান। জোড়া অর্ধশতরানের ইনিংসের সুবাদে ৫ ওভার বাকি থাকতেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় হায়দরাবাদ।

হারের ফলে প্লে-অফে যাওয়ার অঙ্ক আরও অনিশ্চিত হয়ে গেল নাইটদের। প্লে-অফে নিজেদের বাকি ৪ ম্যাচের সবকটি ম্যাচই জিততে হবে কেকেআর শিবিরকে। ৩টি ম্যাচ জিতলেও তাকিয়ে থাকতে হবে অন্য দলগুলির দিকে। বর্তমানে যে বিশ্রী ফর্মে দল রয়েছে, তাতে এ হেন কঠিন কাজটি আদৌ সম্ভব কিনা তা নিয়ে সন্দিহান বিশেষজ্ঞরা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং