৪ আশ্বিন  ১৪২৬  রবিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  ঘুষকাণ্ডে এবার নাম জড়াল শহরের এক বিজেপি নেতার। গড়িয়ার পাটুলির বাড়ি থেকে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এদিকে অভিযুক্ত ওই বিজেপি নেতা আবার মুকুল রায়ের ঘনিষ্ঠ বলে শোনা যাচ্ছে। এমনকী, ঘুষকাণ্ডের এফআইআর-এ প্রাক্তন তৃণমূল নেতার নামও আছে বলে জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: চলন্ত বাসে যৌনাঙ্গ দেখিয়ে মহিলার শ্লীলতাহানি! চাঞ্চল্য কলকাতায়]

অভিযুক্ত বিজেপি নেতার নাম বাবান ঘোষ। দলের মজদুর ইউনিয়নের সভাপতি তিনি। সম্প্রতি টালিগঞ্জের একঝাঁক অভিনেতা-অভিনেত্রী দিল্লিতে গিয়ে যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে। স্টুডিওপাড়ায় আলাদা ইউনিয়ন তৈরি করেছে গেরুয়া শিবির। বিজেপির অন্দরের খবর, টালিগঞ্জে দলের এই উত্থানের পিছনের অভিযুক্ত বাবান ঘোষের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। একসময়ে তৃণমূল করতেন তিনি। পরে মুকুল রায়ের হাতে ধরে যোগ দেন বিজেপিতে।

কিন্তু বিজেপি নেতা বাবান ঘোষকে কেন গ্রেপ্তার হতে হল?  ২০১৫ সালে বেহালার সরশুনা থানায় তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর করেন সন্টু মণ্ডল নামে এক ব্যবসায়ী। অভিযোগকারীর দাবি, রেলমন্ত্রকের একটি কমিটির সদস্য করে দেওয়ার নাম করে তাঁর কাছ থেকে ৪৬ লক্ষ টাকা নিয়েছেন বাবান। কিন্তু, টাকা নিয়েও রেলমন্ত্রকের কমিটির সদস্য করে দিতে পারেননি তিনি। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নামে সরশুনার থানার পুলিশ। শেষপর্যন্ত সোমবার রাতে অভিযু্ক্ত বিজেপি নেতা বাবান ঘোষকে গ্রেপ্তার করা হয়। অভিযুক্তের বাড়ি গড়িয়ার পাটুলিতে। সোমবার মধ্যরাতে কার্যত তাঁকে ঘুম থেকে তুলে পুলিশ গ্রেপ্তার করে বলে জানা গিয়েছে।

এদিকে দলের নেতার বিরুদ্ধে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে অস্বস্তিতে বিজেপি নেতৃত্ব। যদিও তাদের দাবি, বাবান ঘোষ অত্যন্ত দক্ষ সংগঠক। অল্পদিনের নিজের এলাকা তো বটেই, টালিগঞ্জের স্টুডিওপাড়ায় দলের সংগঠনকে মজবুত করেছেন তিনি। তাই পরিকল্পনামাফিক ওই বিজেপি নেতাকে মিথ্যায় অভিযোগে ফাঁসানো হয়েছে। এদিকে এই ঘটনায় খোদ বিজেপি নেতা মুকুল রায়ে নামেও এফআইআর হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সেক্ষেত্রে ভবিষ্যতে তাঁর বিরুদ্ধে সরশুনা থানার পুলিশ পদক্ষেপ করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

[ আরও পড়ুন:  জাগুয়ার কাণ্ডের তদন্তে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি, ‘থ্রি-ডি মডেলিং’ ব্যবস্থায় ঘটনার পুর্নগঠন পুলিশের]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং