১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  সোমবার ৩০ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

শারদীয়ার শুভেচ্ছা জানাতে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যর বাড়িতে ধনকড়, চলল রাজনৈতিক আলোচনা

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: October 24, 2020 7:04 pm|    Updated: October 24, 2020 7:24 pm

An Images

বুদ্ধদেব সেনগুপ্ত: দুর্গাপুজো (Durga Puja) এবছর অন্যভাবেই কাটছে সকলের। আমজনতা থেকে সেলিব্রিটি, রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব – কেউই অন্য বছরের মতো চিরাচরিত পথে উৎসব উদযাপন করতে পারছেন না। এই আবহেই মহাষ্টমীর সন্ধেবেলা চমক দিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়  (Jagdeep Dhankhar)। স্ত্রীকে নিয়ে রাজভবন থেকে তিনি সোজা চলে এলেন পাম অ্যাভিনিউতে, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের বাড়িতে। সেখানে বেশ কিছুক্ষণ সময় কাটান তাঁরা। তবে সূত্রের খবর, রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে গিয়ে বিজেপি ও তৃণমূল সম্পর্কে বেশ কড়া কথাই শুনতে হল রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানকে।

এবারই প্রথম নয়। এ রাজ্যের সাংবিধানিক দায়িত্ব নিয়ে পদে বসার পর জগদীপ ধনকড় একবার গিয়েছিলেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যর (Buddhadeb Bhattacharya) বাড়িতে। সেসময় তিনি বেশ অসুস্থ ছিলেন। তাঁর শারীরিক অবস্থায় খোঁজখবর নিতেই ধনকড় গিয়েছিলেন। শনিবার তাঁর যাওয়া দ্বিতীয়বারের জন্য। ঘড়িতে তখন প্রায় সন্ধে ৬টা। বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যর পাম অ্যাভিনিউর বাড়ির সামনে এসে দাঁড়ায় রাজ্যপালের গাড়ি। তাঁদের স্বাগত জানাতে বাড়ির বাইরেই অপেক্ষা করছিলেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর স্ত্রী মীরা ভট্টাচার্য। তাঁর হাতে ফুল তুলে দেন ধনকড়ের পত্নী। এই মুহূর্তে বেশ অসুস্থ বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। অক্সিজেন চলছে তাঁর। সেই অবস্থায় রাজ্যপালের সঙ্গে কথা বলেন। 

[আরও পড়ুন: করোনা কেড়েছে মেয়ের প্রাণ, দেহ আগলে রাতভর বসে রইলেন সন্তানহারা বৃদ্ধ বাবা]

বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের বাড়ি থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ধনকড় জানান, ”উনি দেশের ঊল্লেখযোগ‍্য রাজনৈতিক ব‍্যক্তিত্ব। ওনার পরামর্শ ও উপদেশ পাওয়া ভাগ‍্যের। তাই শারদীয়ার শুভেচ্ছা জানাতে যাই। আমাদের মধ্যে রাজনৈতিক কথা হয়েছে।” তবে কী কথা, তা জানাতে চাননি তিনি। কিন্তু রাজ্যে নিরপেক্ষ ভোট করতে তিনি বদ্ধপরিকর। প্রশাসন যাতে নিরপেক্ষভাবে কাজ করে, তার জন‍্য সবরকমের চেষ্টা করবেন বলে বুদ্ধবাবুকে জানান ধনকড়। তখনই তৃণমূল ও বিজেপির রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড নিয়ে প্রাক্তন মুখ‍্যমন্ত্রী অসন্তোষ প্রকাশ করেন বলে আলিমুদ্দিন সূত্রে খবর। রাজ‍্যপাল আরও বলেন, ”বুদ্ধবাবুর স্ত্রী মারফত তাঁর শারীরিক খোঁজ আমি রাখতাম। তখনই ওনাকে আজ আসার কথা বলি। বুদ্ধবাবুর সঙ্গে আমার অনেকক্ষণ রাজনৈতিক বিষয় আলোচনা হয়। ওনাকে আমি বর্তমান সময়ের কথা বলেছি, আমিও ওনার থেকে অনেক বিষয় জেনেছি। উনি একজন জীবন্ত কিংবদন্তি রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। আমি ওনার দীর্ঘায়ু কামনা করি।”

[আরও পড়ুন: দেশের তুলনায় রাজ্যে ঊর্ধ্বমুখী করোনা গ্রাফ, মমতাকে সতর্কতার পরামর্শ ‘উদ্বিগ্ন’ ধনকড়ের]

সূত্রের খবর, দু’পক্ষের রাজনৈতিক আলোচনাতেই বিজেপি ও তৃণমূল সম্পর্কে ধনকড়কে বেশ কড়া কথা শুনিয়েছেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা সিপিএম নেতা বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। ফলে বর্ষীয়ান রাজনৈতিক নেতার কাছে পরামর্শ নিতে গিয়ে এবার যে অভিজ্ঞতা খুব মধুর হল ধনকড়ের, তা কিন্তু নয়।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement