১৬ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  শুক্রবার ৩ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

অন্তঃসত্ত্বা ও থ্যালাসেমিয়া রোগীকে হাসপাতালে পৌঁছে রক্ষকের ভূমিকায় কলকাতা পুলিশ

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: March 27, 2020 10:49 am|    Updated: March 30, 2020 6:14 pm

Kolkata Police playing dual Character in Kolkata to control the situation

অর্ণব আইচ: দেশজুড়ে ‘লকডাউন’। শুনশান কলকাতার রাজপথ। জরুরি পরিষেবার গাড়ি ছাড়া রাস্তায় দেখা নেই কোনও গনপরিবহনের। তবে রাজ্যবাসীর প্রয়োজনে হাত বাড়িয়ে রয়েছে কলকাতা পুলিশ। অন্তঃসত্ত্বা, থ্যালাসেমিয়া রোগীদের তারাই পৌঁছে দিচ্ছেন হাসপাতালে। আবার শহরের ভবঘুরে ফুটপাতবাসীদের খাবার জোগানে এগিয়ে রয়েছেন এই কলকাতা পুলিশই।

টানা ২১ দিনের ‘লকডাউন’ জারি হয়েছে দেশজুড়ে। কিন্তু মানবিকতা, সহমর্মিতাবোধ, ভালবাসা, বন্ধুত্ব এই সব মানবিকদিকগুলির উপর ‘লকডাউন’ জারি করা হয়নি। তাই শহরের আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে একদিকে এই কলকাতা পুলিশ যেমন কড়া মনোভাব পোষণ করছেন তেমনই অসহায় ও সম্বলহীনাদের জন্য এগিয়ে আসছেন তারাই। তারাই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলেন, সূর্য, ভালবাসা, সম্পর্ক, জ্ঞান, সুর কোনও কিছুরই লকডাউন হয়নি। তেমনই লকডাউন হয়নি দয়া, আশা, ভক্তি, পড়াশোনারও। সেই প্রমাণই দিল কলকাতা পুলিশ। ট্যাংরায় গভীর রাতে এক অন্তঃসত্ত্বাকে হাসপাতালে পৌঁছে দিলেন তারাই। নিউ মার্কেটে ভবঘুরে ফুটপাতবাসীদের মুখে খাবার তুলে দিল পুলিশই। বেহালায় ৮ বছরের এক শিশুর রক্তের প্রয়োজনে তারাই ব্যবস্থা করে দিলেন। আবার দক্ষিণ-পূর্ব কলকাতায় পথশিশুদের পাত পেড়ে খাওয়ানোর ব্যবস্থা করলেনএই কলকাতা পুলিশেরাই। কলকাতার পুলিশ কমিশনার প্রতিটি থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন, সতর্কতার সঙ্গে পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে ও প্রয়োজনে জনসাধারণের পাশে থাকতে। তাই নিয়ম না মানলে ছুটির মেজাজে রাস্তায় বের হলে ধরপাকড় করছেন পুলিশ। প্রয়োজনে রাস্তায় বসিয়ে কান ধরে ওঠবোসও করাচ্ছেন।

[আরও পড়ুন:মিলেছে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের অনুমোদন, উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে শুরু করোনা পরীক্ষাকেন্দ্র]

পুলিশ জানায় বুধবার রাতে সোয়া বারোটা নাগাদ ট্যাংরা রোডের বাসিন্দা এক অন্তঃসত্ত্বার প্রসব বেদনা ওঠে। গাড়ি করে তাকে আর জিকর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় গাড়িটি খারাপ হয়ে গেলে রাস্তায় থাকা পুলিশ আধিকারিকরাই নিজেদের গাড়িতে করে তাঁকে হাসপাতালে পৌঁছে দেন। জিঞ্জিরাবাজারের ৮ বছরের এক থ্যালাসেমিয়া শিশুর রক্তের প্রয়োজনে তার বাবা-মা তাকে চিত্তরঞ্জন শিশু সেবাসদনে নিয়ে যাচ্ছিলেন। রাস্তায় গাড়ি না পেয়ে অসহায়ভাবে দাঁড়িয়ে দেখে তাদের সাহায্য করতে এগিয়ে যান সাউথ ওয়েস্ট ট্রাফিক গার্ডের আধিকারিকরা। অ্যাম্বুলেন্ড ডেকে তারাই শিশুটিকে হাসপাতালে পাঠান।

[আরও পড়ুন:‘ঘরে থাকলেই আপনি দেশের হিরো’, লকডাউনের সমর্থনে অনুরাগীদের বার্তা শামির]

অন্যদিকে বৃহস্পতিবার নিয়ম ভেঙে রাস্তায় বেরোনোয় পুলিশের হাতে ধরা পড়েছেন মোট ৪৫৩ জন। তবে বুধবার যতজন ধরা পড়েছেন বৃহস্পতিবার সেই সংখ্যাটা ছিল অর্ধেক। লালবাজার সূত্রে জানা যায়, এদিন উত্তর কলকাতা থেকেই বেশি লোককে গ্রেফতার করা হয়। দক্ষিণ কলকাতা থেকে ও ৪২ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে