BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

‘নিউমোনিয়ার ভ্যাকসিন নিন’, ষাটোর্ধ্ব বিধায়কদের পরামর্শ মুখ্যমন্ত্রীর

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: March 17, 2020 2:56 pm|    Updated: March 17, 2020 2:56 pm

An Images

রূপায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়: নোভেল করোনা ভাইরাসের ওষুধ বা প্রতিষেধক এখনও দূরঅস্ত। তাতে কী? নিউমোনিয়ার প্রতিষেধক তো বাজারে পাওয়াই যায়। করোনা সংক্রমণের অন্যতম প্রধান উপসর্গ নিউমোনিয়া। তাই নিউমোনিয়ার টিকা নিলে, কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে তোলা সম্ভব। আজ বিধানসভায় ষাটোর্ধ্ব বিধায়কদের তাই নিউমোনিয়ার প্রতিষেধক নেওয়ার পরামর্শ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বললেন, অ্যান্টি-নিউমোনিয়া ভ্যাকসিন নিন।

মারণ জীবাণুর সংক্রমণ হু হু করে বাড়ছে ভারত-সহ গোটা পৃথিবীতে। মৃত্যুমিছিলও দীর্ঘায়িত হচ্ছে। এই সংকটের মুহূর্তে বাংলার করোনা চিত্র অপেক্ষাকৃত ভাল। এখানে এখনও পর্যন্ত কারও শরীরে COVID-19 জীবাণু মেলেনি। আর পরিস্থিতির যাতে এতটুকুও অবনতি না ঘটে, তার জন্য আগাম সতর্কতা হিসেবে বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ নিয়েছে নবান্ন। জনবহুল যে কোনও জায়গা বন্ধ রাখা হয়েছে। বন্ধ থাকছে রাজ্য বিধানসভার অধিবেশনও। কিন্তু আজ, বঙ্গবন্ধু মুজিবর রহমানের জন্মশতবর্ষ পালনে বিধানসভায় উপস্থিত ছিলেন সব বিধায়ক, ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী, স্পিকারও। আর সেখানে জলপাইগুড়ির কংগ্রেস বিধায়ক সুখবিলাস বর্মাকে কিছুটা অসুস্থ দেখায়। তাঁর কাশি হচ্ছিল।

[আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্ক পার্ক সার্কাসের ‘শাহিনবাগ’-এ, আন্দোলনের ভবিষ্যত নিয়ে প্রশ্ন]

তা দেখেই স্পিকার তাঁর স্বাস্থ্যের খোঁজ নেন। এরপর মুখ্যমন্ত্রী তাঁকে পরামর্শ দেন, নিউমোনিয়ার প্রতিষেধক নিতে। সুখবিলাস বর্মার পাশাপাশি প্রবীণ বিশেষত ষাটোর্ধ্ব বিধায়কদের প্রত্যেককেই তিনি ভ্যাকসিন নেওয়া পরামর্শ দেন। প্রসঙ্গত, করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে পরিসংখ্যা বলছে, প্রবীণদের শরীরের করোনা ভাইরাসের থাবা বসানোর প্রবণতা লক্ষ্য করা গিয়েছে। ভারতে যে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে, তাঁরা সকলেই ষাটোর্ধ্ব। প্রথম মৃত্যু কর্ণাটকের বৃদ্ধের বয়স ৭৬ বছর, দিল্লির মৃত মহিলা ৬৯ বছর বয়সী এবং মহারাষ্ট্রের বৃদ্ধের বয়স ৬৪ বছর। চিকিৎসকরা সতর্কবার্তা দিয়েছেন, প্রবীণ ব্যক্তিদের সাবধানে থাকতে হবে। এসব বিবেচনা করেই বিধায়কদের মুখ্যমন্ত্রীর পরামর্শ, বয়স ৬০ হলে নিউমোনিয়ার ভ্যাকসিন নিন।

[আরও পড়ুন: করোনা এড়াতে চাহিদা তুঙ্গে, সস্তায় হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরির পথে এবার কলকাতা পুলিশও]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement