২৮ আশ্বিন  ১৪২৬  বুধবার ১৬ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

রাহুল চক্রবর্তী: জল সংরক্ষণে উদ্যোগ নিয়ে শুক্রবার জোড়া কর্মসূচিতে অংশ নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গিরিশ পার্ক
থেকে বেলা তিনটে নাগাদ পদযাত্রা শুরু করেন মুখ্যমন্ত্রী।জল সংরক্ষণে বার্তা দিতে এবং জনগণকে সচেতন করতে কোনও মুখ্যমন্ত্রীর এভাবে পথে নামা সম্ভবত এই প্রথম৷ রাজ্য সরকার এবং মমতার এই অরাজনৈতিক পদযাত্রায় ভিড় উপচে পড়েছিল। ছিল সুদৃশ্য ট্যাবলো। ঘণ্টাখানেক পর মেয়ো রোডে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে পদযাত্রা শেষ হওয়ার পর জল সংরক্ষণের অঙ্গীকার করেছেন তিনি। ওই অনুষ্ঠানে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে জল সংরক্ষণে যাঁরা উল্লেখযোগ্য অবদান রেখেছেন, তাঁদের স্বীকৃতি ও সংবর্ধনা জানানো হয়৷ এদিনের পদযাত্রায় মুখ্যমন্ত্রী  সঙ্গে প্রশাসনিক কর্তাব্যক্তি ছাড়াও হেঁটেছেন সংস্কৃতি জগতের বিভিন্ন ব্যক্তিত্ব৷ দেখা গিয়েছে সুবোধ সরকার, আবুল বাশার, ত্রিদিব চট্টোপাধ্যায়দের৷

[আরও পড়ুন: বিজেপি নেতার অত্যাচার, অভিযোগ জানাতে গিয়ে পুলিশের হাতে মার খেলেন তৃণমূল কর্মী]

এবছর থেকে আজকের দিন অর্থাৎ ১২ জুলাই রাজ্যজুড়ে পালিত হবে এই ‘জল বাঁচাও দিবস’৷ রাজ্যের প্রতিটি ব্লকে একইভাবে জল বাঁচাতে নানা কর্মসূচি নেওয়া হচ্ছে। এর আগে জল সচেতনতা প্রচারে গানও বেঁধেছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী। জলের অপচয় রুখতে সচেতনতায় জোর দেওয়া হয়েছিল প্রশাসনের পক্ষ থেকে। তিনি আবেদন করেছিলেন, জল অপচয় না করার। তৈরি হয়েছিল দুটি স্লোগান৷ ‘সেভ ওয়াটার, সেভ এনভায়রনমেন্ট’ ও ‘সেভ ওয়াটার, সেভ লাইফ’। আজকের দিনটি ‘জল বাঁচাও দিবস’ হিসাবে পালন করছে রাজ্য সরকার। এই দিবসকে সামনে রেখে ‘থিম সং’ প্রকাশ করেছে রাজ্য। গানের গীতিকার ও সুরকার মমতা নিজেই। ‘জল বাঁচাও, জলই জীবন’ শীর্ষক একটি গান গেয়েছেন মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন।

[আরও পড়ুন: রাজাবাজারে শুটআউট, গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে যুবক]

দেশের দক্ষিণ অংশে এবার তীব্র জলসংকটে পড়েছেন মানুষ। প্রচুর দামে চেন্নাইয়ে কিনতে হচ্ছে পানীয় জল। এ রাজ্যে এখনও পর্যন্ত
তেমন সমস্যা না হলেও, বিশ্বজুড়ে এই জলসংকটের প্রভাব পড়বেই সর্বত্র৷ সেকথা মাথায় রেখে ভবিষ্যতের জন্য আগেভাগেই প্রস্তুতি
নিচ্ছে রাজ্য সরকার। যদিও দক্ষিণ দিনাজপুর, বাঁকুড়া, পুরুলিয়ার মতো কয়েকটি খরাপ্রবণ জেলায় পানীয় জলের সমস্যা দেখা দিয়েছে
এরইমধ্যে৷ রাস্তার কলে যেভাবে জলের অপচয় হয়, তা রুখতে জনপ্রতিনিধিদেরও উদ্যোগী হতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ এর আগে ‘সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফ’ এর প্রচারে এভাবে পদযাত্রায় শামিল হয়েছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী৷ কলকাতা পুলিশের এই প্রকল্পে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে বেশ কার্যকর হয়েছিল৷ এবার ‘জল বাঁচাও, জীবন বাঁচাও’ কর্মসূচিও তেমনই সাফল্যমণ্ডিত হবে বলে আশাবাদী সকলেই৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং