BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দলের মহিলা কর্মীকে ধর্ষণ মামলায় বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাকে নোটিস পাঠাল বেহালা থানা

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: August 9, 2020 4:43 pm|    Updated: August 9, 2020 4:43 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ২ বছর আগের একটি ধর্ষণ মামলায় জেরা করার জন্য রাজ্য বিজেপির (BJP) ভারপ্রাপ্ত নেতা তথা কেন্দ্রীয় সম্পাদক শিবপ্রকাশকে (Shiv Prakash) নোটিস পাঠাল বেহালা থানার পুলিশ। দলেরই এক মহিলা কর্মী ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেন। ২০১৮ সালের এই মামলায় আগে বঙ্গ বিজেপির প্রাক্তন সাংগঠনিক সম্পাদক অমলেন্দু চট্টোপাধ্যায়কে (Amalendu Chatterjee) গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ। পরে অভিযোগীকারী মহিলাকে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতিতে জামিন পান প্রাক্তন বিজেপি নেতা। কিন্তু কথা মতো বিয়ে হলেও একসঙ্গে থাকতে চাননি অমলেন্দু চট্টোপাধ্যায়। সেই মামলায় অভিযুক্তদের মধ্যে নাম ছিল শিবপ্রকাশেরও। এতদিন পর তাঁকে নোটিস পাঠাল বেহালা থানা। আগামী ৭ দিনের মধ্যে তাঁকে থানায় হাজিরার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর।

বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা শিবপ্রকাশ

পুলিশের নোটিসে বলা হয়েছে, বিজেপি নেতা শিবপ্রকাশকে বেহালা থানার তদন্তকারী অফিসার প্রসেনজিৎ পোদ্দারের সঙ্গে আগামী সাতদিনের মধ্যে দেখা করতে হবে। করোনা পরিস্থিতিতে দিল্লিতে রয়েছেন এই কেন্দ্রীয় নেতা। সেই কারণে দিল্লি বিজেপির ঠিকানায় নোটিস পাঠানো হয়েছে পুলিশের তরফ থেকে। গত ৭ আগস্ট নোটিস পাঠিয়েছে পুলিশ। বেহালার বাসিন্দা ওই মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে ২০১৮ সালের আগস্ট মাস থেকে ধর্ষণের মামলা চলছে। এই মামলায় চার্জশিটও পেশ করেছে পুলিশ। সেখানে বিজেপি নেতা শিবপ্রকাশের নাম রয়েছে।

[আরও পড়ুন: বারুইপুরে বিজেপির শক্তিক্ষয়, তৃণমূলে যোগ দিলেন চারশোর বেশি কর্মী]

সেই নোটিস

প্রসঙ্গত, এই মামলার জেরেই রাজ্য বিজেপি ছাড়তে হয় অমলেন্দু চট্টোপাধ্যায়কে। একদা সংঘ ঘনিষ্ঠ অমলেন্দুকে পরে রাজনৈতিক অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে সম্পূর্ণ বিপরীত মেরুর দল কংগ্রেসে যোগ দিতে হয়। তাও রাজনীতিতে তিনি হারিয়ে যান। যিনি কিনা পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির সংগঠনকে মজবুত করেছিলেন, সেই অমলেন্দু চট্টোপাধ্যায় এখন রাজনীতির দুনিয়া থেকে উধাও। তিনি অবশ্য বলেছিলেন, তাঁকে ফাঁসানো হয়েছে। রাঘববোয়ালদের বাঁচাতে তাঁকে বলিদান দিতে হয়েছে। বিজেপি সূত্রে খবর, শিবপ্রকাশকে নোটিস পাঠানো ঘিরে আইনি পরামর্শ নেওয়া শুরু হয়েছে। তবে প্রকাশ্যে এ সম্পর্কে কোনও মন্তব্য করেননি শিবপ্রকাশ ও বিজেপি নেতৃত্ব।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement