BREAKING NEWS

২৭ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ১২ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

গরম থেকে সাময়িক স্বস্তি, ক্ষণিকের বৃষ্টিতে ভিজবে তিলোত্তমা

Published by: Bishakha Pal |    Posted: May 19, 2019 6:28 pm|    Updated: May 19, 2019 6:28 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রবিবারের বিকেল বয়ে আনল সুখবর। জ্যৈষ্ঠের কাঠফাটা রোদ আর গুমোট গরম থেকে সাময়িকভাবে বিরতি পেল শহরবাসী। আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, রবিবার বিকেলে কলকাতায় হবে বিক্ষিপ্ত বর্ষণ। জায়গায় জায়গায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। সঙ্গে বইছে ঠান্ডা হাওয়া। আবহাওয়ার এমন ভোলবদলে স্বস্তির নিশ্বাস মহানগরে।

প্রকৃতই আজ শান্তিতে শ্বাস নিচ্ছে শহরবাসী। একদিকে লোকসভা নির্বাচন শেষ। দীর্ঘ একমাসের উত্তেজনার অবসান। তার উপর তীব্র দাবদাহ থেকে মিলল স্বস্তি। হোক সাময়িক। তবু ক্ষণিকের শান্তি তো পাওয়া গেল। তবে আবহাওয়া দপ্তর বলছে, এই স্বস্তি সর্বত্র আসবে না। কলকাতার কোথাও কোথাও বৃষ্টি হলেও বাকি জায়গায় থাকবে অস্বস্তি। কলকাতার বাইপাস সংলগ্ন অঞ্চল, উলটোডাঙা, শ্যামবাজার, মানিকতলা-সহ বেশ কিছু জায়গায় এখন স্বস্তির আবহাওয়া। ছিঁটেফোঁটা বৃষ্টিতেও যেন স্বস্তি৷ কিন্তু বাকি সব জায়গায় গরম বহাল থাকবে। এমনকী দক্ষিণবঙ্গের আট থেকে ন’টি জেলায় তাপপ্রবাহেরও সতর্কবার্তা দিয়েছে হাওয়া অফিস। এছাড়া উত্তরবঙ্গের মালদা জেলাতেও তাপপ্রবাহের সম্ভাবনা রয়েছে।

[ আরও পড়ুন: নির্বাচনী এলাকায় ব্যস্ততা তুঙ্গে, ভোট দিতে পারলেন না সৌগত-নেপালদেব ]

এবছর শুরু থেকেই একেবারে হাঁকিয়ে ব্যাটিং করছে গ্রীষ্ম৷ সকাল থেকে সূর্যের চোখরাঙানিতে কাহিল শহর থেকে শহরতলির মানুষ৷ বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই ঊর্ধ্বমুখী তাপমাত্রার পারদ৷ বৈশাখের শেষ সপ্তাহেই তাপমাত্রা প্রায় ৪০ ডিগ্রি ছুঁই ছুঁই৷ সঙ্গে দোসর অতিরিক্ত আর্দ্রতার উপস্থিতি৷ একে ঊর্ধ্বমুখী তাপমাত্রা এবং তার সঙ্গে বেশি আর্দ্রতা৷ দু’য়ে মিলে ত্রাহি ত্রাহি রব তুলেছেন সাধারণ মানুষ৷ ইতিমধ্যেই তীব্র গরমে প্রাণহানিও হয়েছে বেশ কয়েকজনের৷ তাই আকাশের মুখভার হলে খুশিই হচ্ছিল শহরবাসী। বৃষ্টির আশায় চাতকের দশা হয়েছিল। রবিবার বিকেলের বৃষ্টি তা সম্পূর্ণ পূরণ করতে না পারলেও আজকের জন্য স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেছে তিলোত্তমাবাসী। তবে আগামী দু’দিন তাপপ্রবাহ চলবে বলে পূর্বাভাস হাওয়া অফিসের৷

[ আরও পড়ুন: ভোট দিতে গিয়ে ‘আক্রান্ত’ বাবুল সুপ্রিয়, হেনস্তার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement