BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কেন্দ্রীয় দলের সঙ্গে অসহযোগিতার অভিযোগ, মুখ্যসচিবকে কড়া ভাষায় চিঠি কেন্দ্রের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 21, 2020 6:30 pm|    Updated: April 21, 2020 6:30 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি দেখতে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সঙ্গে নবান্নের অসহযোগিতার অভিযোগে দিনভর চাপানউতোর চলেছে। পরিদর্শকদের তরফে অভিযোগ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকে পৌঁছতেই কড়া ভাষায় রাজ্যের মুখ্যসচিবকে চিঠি দিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব। তাতে স্পষ্ট উল্লেখ করা হল, এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রের সমস্ত নির্দেশিকা যেন পালন করে রাজ্য সরকার। কেন্দ্রের কাজে সহযোগিতা করা হয়।

Central-letter

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব অজয় ভাল্লা চিঠিতে লিখলেন, মহামারি করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে রাজ্যগুলির জন্য খুব ভাবনাচিন্তা করেই নির্দেশিকা তৈরি করা হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টও পরিস্থিতির দিকে নজর রেখেছে। বিভিন্ন রাজ্যের পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে তৈরি হয়েছে প্রতিনিধি দল। তাঁদের পশ্চিমবঙ্গ-সহ অন্যান্য রাজ্যেও পরিদর্শনে পাঠানো হয়েছে। অথচ পশ্চিমবঙ্গে তাঁরা কাজ করার ক্ষেত্রে বাধার মুখে পড়ছেন বলে অভিযোগ জানিয়েছেন। বিশেষত কলকাতা ও জলপাইগুড়িতে তাঁদের সঙ্গে সহযোগিতা করেনি জেলা প্রশাসনও। রাজ্য সরকারের এই আচরণ শীর্ষ আদালতের নির্দেশিকাকেও অমান্য করছে বলে রীতিমত কড়া বক্তব্য পেশ করেছেন স্বরাষ্ট্রসচিব অজয় ভাল্লা। এ প্রসঙ্গে বিপর্যয় মোকাবিলা আইনের কথাও তিনি উল্লেখ করেছেন চিঠিতে। তাঁর অভিযোগ, রাজ্যের এই আচরণ বিপর্যয় মোকাবিলা আইনকেও লঙ্ঘন করছে।

[আরও পড়ুন: দিনভর টানাপোড়েনের ইতি! কলকাতা পরিদর্শনে কেন্দ্রের প্রতিনিধি দল]

রাজ্যের বিরুদ্ধে একগুচ্ছ অভিযোগের কথা লিখে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব চিঠিতে ইতি টেনেছেন এই বলে যে এমন সংকটজনক পরিস্থিতিতে যেন কেন্দ্রীয় দলের সঙ্গে কাজে সহযোগিতা করা হয়। কোনও অনুরোধ নয়, এবার সরাসরি আদেশের সুরেই একথা লিখেছেন অজয় ভাল্লা। যদিও এই চিঠি মুখ্যসচিবের হাতে আসার আগেই কলকাতা পুলিশ ও বিএসএফকে সঙ্গে নিয়ে কেন্দ্রীয় পরিদর্শকরা যাদবপুর এলাকায় গিয়েছেন। অর্থাৎ, নিজেদের কাজে ফিরেছেন তাঁরা। তাই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের এই চিঠি নবান্ন খুব ভালভাবে নেয়নি বলে মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ। এ নিয়ে রাজ্য প্রশাসন আলাদা কোনও প্রতিক্রিয়া দেয় কি না, সেটাই এখন দেখার।

[আরও পড়ুন: শহরবাসীকে সচেতন করতে এবার মাইক হাতে স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী, রাস্তায় গাড়িতে বসেই প্রচার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement