BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

স্বচ্ছ নেতার খোঁজ! রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী দেবেশ দাসকে তৃণমূলে যোগের ‘প্রস্তাব’ টিম পিকের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: August 29, 2020 10:52 am|    Updated: August 29, 2020 5:39 pm

An Images

বুদ্ধদেব সেনগুপ্ত: ফের প্রত্যাখ্যাত টিম পিকে। শুনতে হল, ‘মানুষ কেনা যায়, কিন্তু আদর্শ কেনা যায় না’। তৃণমূলের জন্য স্বচ্ছ ভাবমূর্তির নেতা খোঁজার যে অভিযানে প্রশান্ত কিশোরের দলবল নেমেছে, তাতে আরও একবার ধাক্কা খেতে হল তাঁদের। পিকের টিমের দেওয়া প্রস্তাব সাফ নাকচ করে দিলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী দেবেশ দাস।

বেশ কিছুদিন ধরেই পিকের টিমের তরফ থেকে রাজ্যের সিপিএম তথা বামপন্থী নেতাদের কাছে ফোন যাচ্ছে। এর আগে উত্তরবঙ্গের বেশ কয়েকজন সক্রিয় এবং নিস্ক্রিয় বামনেতাকে তৃণমূলে যোগের প্রস্তাব দিয়েছে প্রশান্ত কিশোরের দলবল। ফোন করা হয়েছে সিপিএমের প্রাক্তন বিধায়ক লক্ষীকান্ত রায়, জলপাইগুড়ির প্রাক্তন সাংসদ মহেন্দ্রকুমার রায়ের মতো বাম নেতাদের। সব ক্ষেত্রেই অবশ্য প্রত্যাখ্যাত হয়েছেন তাঁরা। এবার রাজ্যের প্রাক্তন তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী তথা যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক দেবেশ দাসের কাছে ফোন গেল পিকের টিমের তরফে। তাঁকেও দেওয়া হল শাসক শিবিরে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব। অন্তত দেবেশবাবুর তেমনটাই দাবি।

[আরও পড়ুন: সোমেন মিত্রর জায়গায় প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি হতে পারেন প্রদীপ ভট্টাচার্য! তুঙ্গে জল্পনা]

প্রাক্তন মন্ত্রীর দাবি, তৃণমূলের রাজনৈতিক পরামর্শদাতা প্রশান্ত কিশোরের টিমের তরফে তাঁকে ফোন করা হয়েছিল। ফোনে তাঁকে বলা হয়, “আপনার মতো স্বচ্ছ ভাবমূর্তির এবং গ্রহণযোগ্য নেতা আমাদের প্রয়োজন।” প্রাক্তন মন্ত্রীর কাছে দেখা করার সময়ও চাওয়া হয়। কিন্তু বামপন্থী আদর্শে বিশ্বাসী দেবেশবাবু সেই প্রস্তাবে স্পষ্ট ‘না’ বলে দিয়েছেন। পিকের দলের ছেলেদের তিনি জানিয়ে দিয়েছেন,”মানুষ কেনা যায়, কিন্তু আদর্শ কেনা যায় না। আমরা যে আদর্শে বিশ্বাস করি, তাতে আপনাদের প্রস্তাবে সাড়া দেওয়া আমার পক্ষে সম্ভব নয়। তাই দেখা করেও কোনও লাভ হবে বলে মনে হয় না। ভবিষ্যতে আর আমাকে বিরক্ত না করাই ভাল।”

[আরও পড়ুন: ‘দিঘায় কেবল ল্যান্ডিং স্টেশন প্রকল্পে লগ্নি করবে রিলায়েন্স’, কর্মসংস্থানের ঘোষণা মমতার]

আসলে এই মুহূর্তে কাটমানি, আমফান, চালচুরির মতো বিস্তর দুর্নীতির অভিযোগে বিদ্ধ রাজ্যের শাসক শিবির। তাই বিধানসভা নির্বাচনের আগে কিছু স্বচ্ছ ভাবমূর্তির নেতার খোঁজ করছে টিম পিকে। আর তাতে শুরুতেই টার্গেট করা হচ্ছে বিভিন্ন স্তরের বাম নেতাদের। কিন্তু সেই লক্ষ্যে পদে পদে ধাক্কাই খেতে হচ্ছে পিকের দলবলকে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement