BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বিজেপির সঙ্গে গোপন আঁতাঁত নিয়ে প্রকাশ্যে নজিরবিহীন তর্কে জড়াল তৃণমূল, সিপিএম

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 27, 2019 9:10 pm|    Updated: April 27, 2019 9:10 pm

An Images

ক্ষীরোদ ভট্টাচার্য: বিজেপির সঙ্গে কার গোপন সমঝোতা, তা নিয়ে তুমুল বিতর্কে জড়াল সিপিএমতৃণমূল। কলকাতা প্রেস ক্লাবের ‘মিট দ্য প্রেস’ অনুষ্ঠানে সিপিএম রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র শনিবার নজিরবিহীনভাবে তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে আসন সমঝোতার অভিযোগ করেন। তিনি এদিন বলেন, “আমরা জানি তৃণমূল বিজেপিকে আটটি আসন ছাড়বে। যদিও বিজেপি বারোটি আসন চেয়েছিল। উত্তরবঙ্গ থেকে তৃণমূল বিজেপিকে আসন ছেড়েছে। এখন তৃণমূলকে আসন ছাড়ছে বিজেপি।” সূর্যবাবুর এমন নজিরবিহীন বক্তব্যে তুমুল আলোড়ন শুরু হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। এর কিছুক্ষণের মধ্যে অবশ্য প্রেস ক্লাবে বসেই সূর্যবাবুর অভিযোগ খণ্ডন করেছেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সূর্যকান্ত মিশ্রকে পালটা কটাক্ষ করে তিনি বলেছেন,“সূর্যবাবুই না কোনদিন দেখব বিজেপিতে চলে গিয়েছেন। তিনি বোঝেননি আসলে তাঁদের সদস্যরাই বিজেপিতে চলে যাচ্ছে।” সিপিএম রাজ্য সম্পাদককে তৃণমূল মহাসচিবের পরামর্শ, “আগে নিজেদের দলটাকে বাঁচাতে চেষ্টা করুন।”

[ আরও পড়ুন : কমিশনের সদর্থক ভূমিকার অভাবে ভোট দিতে পারছে না মানুষ, তোপ ইয়েচুরির]

গত কয়েক বছর থেকেই সিপিএমের কর্মী,সমর্থকরা দলে দলে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। রাজনৈতিক মহলের অভিমত, পঞ্চায়েত ভোটের পর তা আরও স্পষ্ট হয়েছে রাজ্যে। সূর্যবাবু নিজেই এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে কবুল করেছেন, এমন ঘটনার অভিযোগ পেয়ে একশোর বেশি দলীয় কর্মীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। সিপিএম রাজ্য সম্পাদকের এমন অভিযোগের জবাবে পার্থ চট্টোপাধ্যায় পালটা কটাক্ষ করে বলেছেন,‘‘অভিযোগ তিনি করতেই পারেন। কিন্তু বিজেপির বিরুদ্ধে কারা লড়াই করছে, তা মানুষ দেখছে। মুশকিল হচ্ছে, এরা বেশি জানে। আর বেশি জানা লোকের বিপদও বেশি। তারা মানুষকে বোঝাতে পারে না।”এখানেই থেমে থাকেননি তৃণমূলের মহাসচিব। সিপিএম রাজ্য সম্পাদকের উদ্দেশে তিনি বলেছেন,“ তাঁদেরই তো সব শাখা অফিস বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু তাঁরা মানুষের কাছে যাচ্ছেন না৷”
এদিন বামেদের কটাক্ষ করে তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছেন,বামেরা এখন আর আয়ারাম-গয়ারাম নয়। কিন্তু বিজেপি বিরোধী লড়াইয়ে সিপিএমের বড়, মাঝারি মাপের নেতারা কোথায়? তারাই এখন বিজেপিটা দখল করে নেবে। এক প্রশ্নের উত্তরে তৃণমূল মহাসচিব বলেছেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাস্তা করেছেন, বাড়ি করেছেন, পানীয় জল পৌঁছে দিয়েছেন। এইসব কাজের একটা ভাল প্রভাব আছে। অন্যদিকে, বিজেপি ভোট চাইছে ক্ষমতায়নের পথে গিয়ে। তবে তৃণমূলের মহাসচিবের মতোই সিপিএম রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রও এদিন জানিয়েছেন, নির্বাচন কমিশনের ভূমিকায় তাঁরা খুশি নন।

[ আরও পড়ুন: গোপনীয়তায় হস্তক্ষেপ নয়, ফোন করে জনসংযোগের পথে এবার হাঁটছে না তৃণমূল]

আরেকদিকে, শনিবার গাইঘাটায় বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের সিপিএম প্রার্থী অলকেশ দাসের প্রচারে গিয়ে নরেন্দ্র মোদিকে ‘দেশদ্রোহী’ বলেছেন সূর্যকান্ত মিশ্র৷ তিনি আরও অভিযোগ করেন, ‘দিদি- মোদির মধ্যে গোপন গাঁটছড়া চলছে, তা আরও একবার প্রমাণিত কুর্তা, মিষ্টি প্রসঙ্গে৷ সারদা,নারদায় তৃণমূল নেতারা যুক্ত থাকলেও পাঁচ বছরে কোনও ব্যবস্থা নেয়নি নরেন্দ্র মোদি সরকার৷’ দলীয় কর্মী, সমর্থকদের উজ্জীবিত করতে তিনি বলেন, ‘সংগ্রামের আর একধাপ, কাস্তে-হাতুড়ি-তারায় ছাপ৷’

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement