৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘মুসলিম বিদ্বেষ’ ছড়ানো নিয়ে প্রশ্ন ফেসবুকের অন্দরেও! কর্তৃপক্ষকে চিঠি অসন্তুষ্ট কর্মীদের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: August 20, 2020 10:28 am|    Updated: August 20, 2020 10:28 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতে মুসলিম বিদ্বেষ ছড়ানো নিয়ে এবার প্রশ্ন ওঠা শুরু করল ফেসবুকের অন্দরেও। সংস্থার কর্মীদেরই একাংশের দাবি, ভারতে মুসলিম বিদ্বেষ ছড়ানো নিয়ে কর্তৃপক্ষকে প্রশ্নের মুখে দাঁড় করাল। সংবাদসংস্থা রয়টার্সের দাবি, ফেসবুকের ১১ জন শীর্ষস্থানীয় কর্মী ভারতে সংস্থার পলিসি নিয়ে প্রশ্ন তুলে কর্তৃপক্ষকে চিঠি লিখেছেন। তাঁদের দাবি, আরও বহু কর্মী জানতে চায় ঘৃণা ছড়ানো রুখতে সংস্থা কী কী পদক্ষেপ করেছে।

সম্প্রতি মার্কিন সংবাদ মাধ্যম ‘ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল’-এ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন ঘিরে বিতর্কের সূত্রপাত। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, ভারতে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ (Facebook India)  বিজেপি নেতাদের বা বিজেপি সমর্থিত সংগঠনের ঘৃণা এবং মুসলিম বিদ্বেষী মন্তব্য এড়িয়ে যায়। এই ধরনের মন্তব্যের বিরুদ্ধে কোনওরকম ব্যবস্থা নেওয়া হয় না। উদাহরণ হিসেবে টাইগার রাজা সিং-সহ একাধিক বিজেপি নেতার নাম বলা হয়েছিল, যারা নিয়মিত বিদ্বেষমূলক আচরণ করলেও তাঁদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেয়নি কর্তৃপক্ষ। যা নিয়ে পুরোদমে আক্রমণে নেমেছে কংগ্রেস। বিজেপির (BJP) সঙ্গে ফেসবুকের আঁতাঁতের অভিযোগ তুলছে তাঁরা। কংগ্রেসের (Congress) দাবি, সেই ২০১২ সাল থেকেই বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছে ফেসবুক ইন্ডিয়া। ইস্যুটি গড়িয়েছে সংসদ পর্যন্ত। ভারতে কেন বিদ্বেষমূলক মন্তব্য ছড়াতে দেওয়া হল? তা নিয়ে সম্পূর্ণ তদন্ত চেয়েছে কংগ্রেস। এমনকী, এ নিয়ে ফেসবুকের ভারতীয় শাখার জবাব তলব করতে চান তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান শশী থারুর।

[আরও পড়ুন: Facebook নিয়ন্ত্রণ করে বিজেপি-RSS! বিতর্কের জেরে অভিযোগ ওড়াল জুকারবার্গের সংস্থা]

এসব অভিযোগ নিয়ে ভারতীয় রাজনীতি যখন সরগরম। তখন ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে  সংস্থার অন্দরেই পড়তে হল প্রশ্নের মুখে। রয়টার্সের দাবি অনুযায়ী, সংস্থার ১১ জন কর্মীর লেখা চিঠিতে স্পষ্টতই কর্তৃপক্ষের ভূমিকায় অসন্তোষ প্রকাশ করা হয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, সংস্থার উচিত মুসলিম বিদ্বেষের বিষয়টিতে আলোকপাত করা এবং তা বন্ধ করা। চিঠিতে দাবি করা হয়েছে, ভারতে ফেসবুকের পলিসি টিমে যেন সব শ্রেণির মানুষকে সুযোগ দেওয়া হয়। চিঠির মাধ্যমে কর্মীরা বলছেন,”আমরা অত্যন্ত বিরক্ত এবং এই ধরনের খবরে স্তব্ধ। আমরা শুধু একা নই, আমরা জানি গোটা বিশ্বের কর্মীরাই আমাদের মতোই ভাবছেন।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement