BREAKING NEWS

১৯ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ৫ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

সেবামূলক কাজে যুক্ত হল Jio, এবার টোল-ফ্রি নম্বরে কল করলেই পাঠ দেবেন শিক্ষকরা

Published by: Sulaya Singha |    Posted: February 22, 2020 6:36 pm|    Updated: February 22, 2020 6:36 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ইন্টারনেট ডেটার দুনিয়ায় বিল্পব এনেছে রিলায়েন্স জিও। গ্রাহকদের জন্য আকর্ষণীয় সব অফার এনে অন্য টেলিকম সংস্থাগুলিকে রীতিমতো চাপে ফেলে দিয়েছে মুকেশ আম্বানির কোম্পানি। তবে শুধু প্ল্যান আর অফারই নয়, এবার সমাজ সেবামূলক কাজেও অগ্রণী ভূমিকা নিল জিও। এবার থেকে টোল-ফ্রি নম্বরে ফোন করলেই শিক্ষকের পরামর্শ নিতে পারবে পড়ুয়ারা। বিষয়টা তাহলে একটু খোলসা করে বলা যাক।

এ সমাজে আরও অর্থের অভাবে অনেক কচিকাঁচারা স্কুলে যেতে পারে না। স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা সহজ পাঠের সঙ্গে হাত মিলিয়ে তাদের কাছে শিক্ষার আলো পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্ব নিল জিও। ‘টিচার-অন-কল’ নামের বিনামূল্যে একটি পরিষেবা চালু করল এই টেলিকম সংস্থা। এই নম্বরে ফোন করলে গ্রামের দুঃস্থ ছাত্রছাত্রীদের ফোনেই পড়াবেন শিক্ষকরা। অর্থাৎ নিখরচায় ফোন কানেই পড়াশোনা করতে পারবে শিক্ষার্থীরা।

[আরও পড়ুন: ৩৩৬ দিনের আকর্ষণীয় প্ল্যান নিয়ে হাজির Jio, জেনে নিন খুঁটিনাটি]

কিছুদিন আগে টোল-ফ্রি নম্বরের পরিষেবাটি বন্ধ করে দিয়েছিল সহজ পাঠ নামের সংস্থাটি। বিনামূল্যের পরিষেবা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সমস্যায় পড়ে পড়ুয়ারা। তাদের সুবিধার জন্য একটি নন-টোল-ফ্রি নম্বর চালু করা হয়। যেখানে ফোন করলে ফোনটি কেটে সহজ পাঠই ঘুরিয়ে কল করত সেই শিক্ষার্থীকে। কিন্তু তাতেও সমস্যা মেটেনি। প্রতি মাসে মোবাইল রিচার্জ করে শিক্ষালাভের মতো আর্থিক ক্ষমতা এই সমস্ত পরিবারের নেই। ঠিক তখনই জিওর (Jio) সঙ্গে হাত মেলায় সংস্থাটি। ছাত্রছাত্রীদের জন্য ফের চালু হয় টোল-ফ্রি নম্বর। 1800-890-6006 নম্বরে ফোন করলে দেশের সমস্ত প্রান্তের পড়ুয়ারা বিনামূল্যে শিক্ষাগ্রহণ করতে পারবে। জিও আর সহজ পাঠের এই উদ্যোগে খুশি পড়ুয়া এবং তাদের অভিভাবকরা। এবার জেনে নিন, টিচার-অন-কলের খুঁটিনাটি।

২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে বাংলামাধ্যম স্কুলের পড়ুয়াদের জন্য এ রাজ্যে চালু হয় টিচার-অন-কল পরিষেবা। এই টোল-ফ্রি নম্বরে কল করলে পঞ্চম থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত ছাত্রছাত্রীরা পদার্থবিদ্যা, জীববিদ্যা, অঙ্ক এবং ইংরাজির পাঠ পায়। ফোন করার সময় সোম থেকে শনিবার সকাল ন’টা থেকে বেলা ১২টা এবং বিকেল ৪টে থেকে রাত ৯টা। রবিবার এই পরিষেবা পাওয়া যায় সকাল ৯টা থেকে রাত ন’টা পর্যন্ত। এই পরিষেবা চালুর পর এখনও পর্যন্ত ৮১১টি স্কুলের ৭,৭০০ জনেরও বেশি পড়ুয়া উপকৃত হয়েছে। প্রায় এক লক্ষ ১০ হাজার ফোন কল পেয়েছে সহজ পাঠ। শুধু তাই নয়, একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির বেশ কিছু পড়ুয়া টোল-ফ্রি নম্বরের সাহায্য নিয়ে লেখাপড়া করে স্কলারশিপও পেয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই জিওর সৌজন্যে এই পরিষেবা ফিরে পাওয়ায় খুশি পড়ুয়ারা।

[আরও পড়ুন: সংকটের মধ্যে টেলিকম মন্ত্রীর দ্বারস্থ এয়ারটেল কর্তা, ভোডাফোন নিয়ে জট অব্যাহত]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement