২৭ কার্তিক  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৭ কার্তিক  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: স্মার্ট ফোনের দৌলতে এখন দুনিয়া কার্যত হাতের মুঠোয়।কিন্তু কে কীভাবে তা ব্যবহার করবে, তার উপরেই নির্ভর করে ভবিষ্যৎ৷ আর এখানেই ইন্টারনেট ও ইউটিউবের সাহায্য নিয়ে অভিনব কাণ্ড ঘটিয়ে ফেলল এক বালক। মাত্র ৯ বছর বয়সেই ১০৬টি ভাষা লিখতে ও পড়তে শিখে গিয়েছে সে! তার কৃতিত্ব প্রকাশিত হতেই রীতিমতো শোরগোল নেটদুনিয়ায়।

[ আরও পড়ুন: জলের তলায় রুবিক’স কিউব সলভ করে বিশ্বরেকর্ড মুম্বইয়ের যুবকের]

চেন্নাইয়ের ওই বিস্ময় শিশুর নাম নাইল্লি থুগুলোভা। বাড়ি চেন্নাইয়ে। যে বয়সে আর পাঁচজন শিশু নিজের মাতৃভাষায় সবে সড়গড় হতে শুরু করে, সেই বয়সেই কিনা ১০৬টি বিদেশি ভাষায় দিব্যি গড়গড়িয়ে পড়তে ও লিখতে পারছে নাইল্লি! কীভাবে সম্ভব হল এমনটা? পরিবারের লোকেদের দাবি, অন্য ভাষা শেখার জন্য কোনও শিক্ষক রাখার প্রশ্নই নেই। বাড়িতে কেউ তাকে আলাদা করে ওই ভাষাগুলি শেখানওনি। ইন্টারনেট ও ইউটিউবের সাহায্যে নাইল্লি নিজেই ১০৬টি ভাষা রপ্ত করে ফেলেছে। এখানেই শেষ নয়, এই বয়সেই ইন্টারন্যাশনাল ফোনেটিক অ্যালফাবেট বা আইপিএ শিখে ফেলেছে নাইল্লি।

ইন্টারন্যাশনাল ফোনেটিক অ্যালবেটিক বা IPA। বিষয়টি ঠিক কী? যে কোনও ভাষা স্রেফ শুনেই প্রকৃত উচ্চারণ শিখে ফেলার পদ্ধতিই হল এই ইন্টারন্যাশনাল ফোনেটিক অ্যালবেটিক বা IPA। এই পদ্ধতিতে সারা বিশ্বেই স্বীকৃত। এই পদ্ধতিও নাইল্লি এতটাই রপ্ত করে ফেলেছে যে, এখন ছেলের কাছে উচ্চারণ শিখছেন নাইল্লি থুগুলোভার বাবা-মা। চেন্নাইয়ের এই বিস্ময় বালকের স্বীকারোক্তি, ‘ভাষার প্রতি কীভাবে আগ্রহ জন্মাল, তা জানি না। তবে আমি ১০৬টি ভাষায় লিখতে ও পড়তে জানি। ১০টি ভাষায় সাবলীলভাবে কথা বলতে পারি। আরও পাঁচটি ভাষা শিখছি।’ নাইল্লি থুগুলোভা বাবা শংকর নারায়ণ অবশ্য জানিয়েছেন, গত বছর লক্ষ করছি, ভাষার প্রতি ছেলের আগ্রহ। আর ইন্টারনেট ব্যবহার করে মাত্র এক বছরে একে পর এক ভাষা রপ্ত করে ফেলেছে সে।

[আরও পড়ুন: আড্ডা-খাওয়াদাওয়া চলবে নিঃশব্দে, চলে আসুন এই কাফেটেরিয়ায়]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং