২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জানেন কেন বেশি গুরুত্ব সোমবতী অমাবস্যার? সংসারের মঙ্গলের জন্য এই কাজগুলি করুন

Published by: Sulaya Singha |    Posted: July 19, 2020 10:02 pm|    Updated: July 19, 2020 10:11 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শ্রাবণ মাস হল মহাদেব শিবের মাস। প্রায় গোটা মাস ধরেই কৈলাশদেবের পুজো করেন ভক্ত। এবছর ৬ জুলাই অর্থাৎ সোমবার থেকে শ্রাবণের পুজো শুরু হয়েছে। তবে এই মাসের তৃতীয় সোমবারটির গুরুত্ব অনেকটাই বেশি। কারণ এদিন অমাবস্যা। আসলে শ্রাবণ মাসের সোমবারে সচরাচর অমাবস্যা পড়ে না। তাই এই দিনটা যে ঈশ্বরবিশ্বাসী হিন্দুদের কাছে অতিরিক্ত গুরু পাবে, তা বলাই বাহুল্য। চলুন জেনে নেওয়া যাক সোমবতী অমাবস্যার নির্ঘণ্ট, পুজোর বিধি। সঙ্গে জেনে নিন, এই দিন ঠিক কী কী নিয়ম পালন করা শুভ।

১৯ জুলাই রাত ১২টার পর অর্থাৎ ২০ জুলাই ১২.১০ মিনিট থেকে ২০ জুলাই রাত ১১.০২ মিনিট পর্যন্ত অমাবস্যা তিথি থাকবে। এই দিন শুধু মহাদেব নয়, পার্বতী, গণেশ, কার্তিক এবং নন্দীকেও পুজো করে থাকেন ভক্তরা। জ্যোতিষ শাস্ত্র মতে, এই দিনটিতে চাঁদ, বুধ, বৃহস্পতি, শুক্র এবং শনি নিজেদের স্থানে থাকে। কেউ কারও উপর প্রকট হয় না। সোমবতী অমাবস্যার সঙ্গেই অবস্থান করে হরিয়ালি অমাবস্যা। তাই এই দিনে পার্বতী মাতার পুজো করলে সংসারে শান্তি বজায় থাকে। এই দিনে অনেক এয়োতিই স্বামীদের শুভকামনায় উপোস করেন। আবার অবিবাহিত মেয়েরা শিবের মতো স্বামী পেতে উপোস থেকে পুজো দেন।

[আরও পড়ুন: উত্তরকাশীর ভগ্নপ্রায় ব্যাসগুহা সংস্কার করে মন্দির স্থাপন বাঙালি সন্ন্যাসীর]

সোমবতী অমাবস্যায় কোন কাজগুলি করা শুভ?
এই দিনটিতে গাছ লাগালে এবং প্রকৃতির দেখভাল করলে সংসারে সুখ-শান্তি বজায় থাকে। ঈশ্বরের আশীর্বাদ মেলে বলেই বিশ্বাস করা হয়। এছাড়াও পূর্বপুরুষদের শ্রদ্ধা জানানোর ক্ষেত্রেও দিনটি অত্যন্ত শুভ। দুস্থ-গরিবদের খাওয়াতে পারলে কিংবা তাঁদের হাতে বস্ত্র তুলে দিতে পারলে মঙ্গল হবে।

পুজোর আচারবিধি:
ব্রহ্ম মুহূর্ত অর্থাৎ সূর্য ওঠার ঘণ্টা দুয়েক আগে উঠে পড়তে পারলে খুব ভাল।
এরপর মেডিটেশন বা ধ্যান করে স্নান করে ফেলুন। স্নানের পর অবশ্যই পরিষ্কার পোশাক পরুন।
দিনটি পবিত্রভাবে নিষ্ঠার সঙ্গে কাটানোর সংকল্প করুন।
এদিন চাল বা গম জাতীয় খাবার এবং আমিষ খাবার খাবেন না।
সূর্যকে জল দিয়ে প্রণাম সেরে শিব, পার্বতী, কার্তিক, গণেশ এবং নন্দীর পুজো করুন।
তুলসী গাছে অবশ্যই জল দেবের ও আরতি করবেন।

[আরও পড়ুন: অবশেষে স্বস্তিতে গ্রাহকরা, বিদ্যুতের বিল নিয়ে বড় ঘোষণা CESC’র]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement