২১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  রবিবার ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দূষণ ছড়াচ্ছে। আর তার ফল ভোগ করতে হচ্ছে গোটা জীবজগৎকে। দেশে ক্রমবর্ধমান দূষণ যে জীববৈচিত্র্যের উপর বড় প্রভাব ফেলছে, তার প্রমাণ রাজস্থানের সম্ভর লেকের ঘটনা। একসঙ্গে প্রায় হাজার দেড়েক মৃত পাখির দেহ উদ্ধার হয়েছে ওই লেকের পাশ থেকে।

একসঙ্গে এত পাখির মৃত্যুতে চমকে গিয়েছেন এলাকাবাসী। কীভাবে এত সংখ্যক পাখির মৃত্যু হয়েছে, তা তাঁদের জানা নেই। সরকারি হিসাব অনুযায়ী ওই দেড় হাজার মৃত পাখির মধ্যে রয়েছে প্রচুর পরিযায়ী পাখি। বেসরকারি মতে আবার মৃত পাখির সংখ্যা ৫০০০। রাজস্থান বন দপ্তরের এক কর্তার দাবি, ‘পাখিদের মৃত্যুর পিছনে রয়েছে লেকের জলে দূষণ।’ মৃত্যুর কারণ, কোনও অজানা ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাসের সংক্রমণও হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন : ফের উত্তপ্ত জম্মু-কাশ্মীর, সেনার গুলিতে খতম ১ জঙ্গি]

সম্ভরের বনাঞ্চলের এক রেঞ্জ অফিসার আবার দাবি করেছেন, ‘কয়েকদিন আগেই এলাকায় প্রবল শিলাবৃষ্টি হয়েছিল। তার ফলে ওইসব পাখিদের মৃত্যু হতে পারে।’ তবে যে কোনও কারণেই হোক ঘটনায় মারা গিয়েছে অন্তত ১০টি প্রজাতির পাখি। এক বন আধিকারিক জানিয়েছেন, প্রতিবছর এই লেকে কমপক্ষে ২-৩ লক্ষ পাখি আসে। কিন্তু এমন ঘটনা আগে কখনও ঘটেছে বলে তাঁর মনে পড়ছে না।

ওইসব পাখিদের মৃতদেহ পরীক্ষার জন্যে পাঠানো হয়েছে ভোপালের একটি পরীক্ষাগারে। রাজ্যের প্রাণী বিকাশ দপ্তরের আধিকারিক আর জি উজ্জ্বল সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, জলে লবণের মাত্রা বেড়ে যাওয়া পাখিদের মৃত্যুর কারণ হতে পারে।থাকতে পারে জলের দূষণও। জলে লবণের মাত্রা বেড়ে গেলে তা রক্তেও লবণের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। এর ফলে মস্তিষ্ক বিকল হয়ে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। তবে সঠিক কারণ জানা যাবে পরীক্ষার রিপোর্টে।

[আরও পড়ুন : মন্দির-মসজিদের আশ্চর্য সহাবস্থান, সম্প্রীতির দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে অযোধ্যা]

পশ্চিমবঙ্গে দূষণের জেরে পাখি মৃত্যুর খবর না মিললেও, নির্জনতা কমে পরিবেশ বদলে যাওয়ায় সাঁতরাগাছি ঝিলে প্রত্যেক বছর পরিযায়ী পাখি আসার সংখ্যা কমছে। সম্প্রতি পাখিদের জন্য তৈরি করা হয়েছে ‘আইল্যান্ড’। 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং