BREAKING NEWS

২৮ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৪ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

পাঁচ বছরের জন্য নির্বাসিত হলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটার শাহাদাত হোসেন

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: November 19, 2019 9:25 pm|    Updated: November 19, 2019 9:25 pm

An Images

সুকুমার সরকার, ঢাকা: সতীর্থ খেলোয়াড়কে মাঠে মারধর করে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন ক্রিকেটার শাহাদাত হোসেন। একইসঙ্গে তাঁকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বাংলাদেশ জাতীয় লিগের ম্যাচে মাঠেই সতীর্থ ক্রিকেটারের গায়ে হাত তোলার অপরাধে শাহাদাত হোসেন রাজীবকে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বা বিসিবি।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের টেকনিক্যাল কমিটির প্রধান মিনহাজুল আবেদিন নান্নুর পক্ষ থেকে শাহাদাতের শাস্তির ব্যাপারটি নিশ্চিত করা হয়। আগামী ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত এই শাস্তির বিরুদ্ধে আপিল করার সুযোগ পাচ্ছেন শাহাদাত। পাঁচ বছরের এই শাস্তির শেষ দুই বছর স্থগিত নিষেধাজ্ঞা, অর্থাৎ আর অপরাধে না জড়ালে তিনি তিন বছর পরেই ক্রিকেটে ফিরে আসার সুযোগ পাবেন। জাতীয় দলের প্রাক্তন এই পেসার বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন, যে তিনি নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আপিল করবেন।

জাতীয় লিগের শেষ রাউন্ডের ম্যাচে খুলনার বিপক্ষে ঢাকা বিভাগের হয়ে খেলেছিলেন শাহাদাত। জাতীয় দলে দীর্ঘদিন খেলা এই পেসারের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে রবিবার। অভিযোগে বলা হয়, বলের ঔজ্জ্বল্য বাড়ানো নিয়ে কথা বলার সময় শাহাদাত ক্ষিপ্ত হন সতীর্থ অফ স্পিনার আরাফাত সানি জুনিয়রের উপর। সেখানে উপস্থিত ম্যাচ রেফারি আখতার আহমেদ এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন। ম্যাচ রেফারি আখতার আহমেদ তৎক্ষণাৎ এই ক্রিকেটারকে আইন অনুযায়ীই ম্যাচের শেষ দুই দিনের জন্য বহিষ্কার করেন। তিনি সেখানেই সংবাদমাধ্যমকে বলেন, আচরণবিধির লেভেল ৪ ভেঙেছেন শাহাদাত – যাকে অত্যন্ত গুরুতর বলে বর্ণনা করেন তিনি। টেকনিক্যাল কমিটির প্রধান মিনহাজুল আবেদিন বলেন, “এখানে উল্লেখ করা হয়েছে যে লেভেল ৪ ভেঙেছে শাহাদাত।”

[আরও পড়ুন: মাঠের মধ্যেই সতীর্থকে মারধর, নির্বাসনের মুখে বাংলাদেশের ক্রিকেটার]

এই ধারা ভাঙলে এক বছর থেকে শুরু করে আজীবনও নিষিদ্ধ হতে পারে। টেকনিক্যাল কমিটির এক বৈঠকের পরে মঙ্গলবার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হয় যে শাহাদাত হোসেনকে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। বাংলাদেশের হয়ে ৩৮টি টেস্ট, ৫১টি ওয়ানডে ও ৬টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন শাহাদাত। ২০১৫ সালের পর আর জাতীয় দলে দেখা যায়নি এই ক্রিকেটারকে। এর আগে গৃহকর্মী নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছিল ক্রিকেটার শাহাদত হোসেনের বিরুদ্ধে, যার জেরে তার উপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছিল ২০১৬ সালে। বিষয়টি সে সময় আদালতেও গড়িয়েছিল।

[আরও পড়ুন: গোলাপি বলে বাজিমাত করতে এভাবেই অনুশীলন করছে বাংলাদেশ]

ওই ঘটনার দু্দিন পর আজ, মঙ্গলবার শাহাদাত হোসেনের সঙ্গে কথা হয় বিবিসি বাংলার। তিনি বলেন, “আমি তো আমার প্রতিপক্ষের গায়ে হাত তুলিনি, কাউকে পেটাইনি। আমি যা করেছি সেটা হলো ধাক্কা দিয়েছি। তিনি আরও বলেন, আরাফাত আমার জুনিয়র ক্রিকেটার, ওকে নিয়েই আমি বিসিবির কাছে আপিল করতে যাব।” তবে শাহাদাত হোসেন স্বীকার করেন যে, তিনি দোষ করেছেন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement