BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জল্পনার অবসান, বাতিলই হয়ে গেল এবছরের আইপিএল!

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: April 16, 2020 5:39 pm|    Updated: April 16, 2020 6:04 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আশঙ্কা ছিলই। সেটাই সত্যি হল। করোনা মহামারির জেরে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত হয়ে গেল এবছরের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (Indian Premier League)। বুধবারই বিসিসিআই(BCCI) জানিয়েছিল, দেশজুড়ে লকডাউন বৃদ্ধি পাওয়ায় আইপিএল অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে দেওয়া হতে পারে। পরে সরকারিভাবে সেটাই জানানো হয়েছে। কিন্তু একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সুত্রের খবর, ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলিকে বিসিসিআই জানিয়েই দিয়েছে এবছর আর এই কোটি টাকার টুর্নামেন্ট আয়োজন সম্ভব নয়।

IPL

গত মঙ্গলবার আইপিএল চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল, বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়(Sourav Ganguly) , বোর্ড সচিব জয় শাহ (Jay Shah), এবং বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ অরুণ ধূমল ভিডিও কনফারেন্সে এক জরুরি বৈঠক করেন। সেই বৈঠকেই ঠিক হয়, লকডাউন বেড়ে যাওয়ার ফলে আপাতত আইপিএল আয়োজিত হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তারপরই বুধবার বেসরকারিভাবে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলিকে জানিয়ে দেওয়া হয়, এই পরিস্থিতিতে আইপিএল আয়োজন সম্ভব নয়। যদিও বোর্ড সরকারিভাবে এখনই মেগা টুর্নামেন্টটিকে বাতিলের খাতায় ফেলেনি। তবে কয়েকটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের দাবি, এ বছর যে আইপিএল হচ্ছে না, সেই সিদ্ধান্ত পাকা হয়ে গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: ভারতের প্রতি পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ, আইসিসির বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফুঁসছে পিসিবি]

গত ২৯ মার্চ টুর্নামেন্ট শুরুর কথা ছিল। করোনার কোপে তা পিছিয়ে দেওয়া হয়। ঠিক হয়, ১৫ এপ্রিল শুরু হবে আইপিএল ১৩। কিন্তু কোথায় কী। বাংলা-সহ বেশ কিছু রাজ্যে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণার জেরে বিশ বাঁও জলে যায় টুর্নামেন্টের ভবিষ্যৎ। মঙ্গলবার সেই মেয়াদ আরও বাড়ল। এদিন জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানিয়ে দেন, আগামী ৩ মে পর্যন্ত দেশজুড়ে চলবে লকডাউন। ততদিন পর্যন্ত রেল থেকে বিমান- সমস্ত পরিষেবা বন্ধ। অর্থাৎ বিদেশি তারকাদের না দেশে আগমন সম্ভব, আর না ম্যাচ আয়োজন করা সম্ভব। তাছাড়া ৩ মে পর্যন্ত সমস্তরকম খেলাধুলা বন্ধ রাখার জন্য আলাদা করে নির্দেশিকা দেওয়া হয়। এই পরিস্থিতিতে আর কোনওভাবেই টুর্নামেন্টের আয়োজন সম্ভব নয় বলে ধরে নিচ্ছেন বোর্ড কর্তারা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement